অলিম্পিকের বাছাই নিয়ে প্রশ্ন তোলায় নিষিদ্ধ হলেন দেশের দ্রুততম মানব

স্পোর্টস ডেস্কঃ টোকিও অলিম্পিকে অ্যাথলেটিকস ইভেন্টের জন্য বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন প্রাথমিকভাবে তিন জনকে মনোনীত করেছিল। দেশের দ্রুততম মানব মোহাম্মদ ইসমাইল, দ্রুততম মানবী শিরিন আক্তার ও জহির রায়হান ছিলেন সেই তালিকায়। তবে দ্রুততম মানব ইসমাইলকে সরিয়ে জহিরকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হয়। আর পাঠানো হয় শিরিনকে।

তবে জহিরকে নেওয়ায় বেশ ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন ইসমাইল। বাছাই প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। গণমাধ্যমের সামনে অনিয়মের অভিযোগ আনেন, জানান অবিচার করা হয়ে তার। আর এমন কাণ্ডেই ইসমাইলের ওপর নেমে এলো শাস্তির খড়গ। শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ এনে তাকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন।

গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হওয়ায়, দেশে-বিদেশে ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে বলে অভিযোগ আনা হয়। আর এর জন্য ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কারণ দর্শানোর নোটিশও দেওয়া হয়। নোটিশের উত্তরও দেন ইসমাইল। পরবর্তীতে তদন্ত কমিটি শাস্তির সিদ্ধান্ত নেয় করে।

গেল ২ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে সেই শাস্তি। যা চলবে আগামি বছরের ১ অক্টোবর পর্যন্ত। এই এক বছর ঘরোয়া কিংবা আন্তর্জাতিক কোনো আসরেই অংশ নিতে পারবেন না নৌবাহিনীর এই অ্যাথলেট। রেকর্ড টানা চার বার দ্রুততম মানব হওয়া ইসমাইল অবশ্য আপিল করার সুযোগ পাবেন শাস্তির বিরুদ্ধে।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা