আন্তর্জাতিক নয় ঘরোয়া ক্রিকেটে জোর দিতে হবে: নাজমুল আবেদিন ফাহিম

ক্রিকেটারদের গুরু বলা হয়। সবার কাছে ফাহিম স্যার নামে পরিচিত। বিকেএসপির ক্রিকেট কোচ থেকে বিসিবি। ক্রিকেটের দেখ-ভালো করে থাকেন। সাকিব-মুশফিকরা যখন সমস্যায় পড়েন তখন ছুটে যান তাঁর কাছেই। ক্রিকেটের বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করা ফাহিম স্যার তথা নাজমুল আবেদিন ফাহিম এবার যুক্ত আছেন বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের সাথে। ৩০ সদস্যের প্রাথমিক ক্যাম্প শুরু হয়েছে ১২ এপ্রিল থেকে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। দলটির বিভিন্ন দিক ও মেয়েদের আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেট নিয়ে কথা বলেছেন এসএনপিস্পোর্টসের সাথে। শনিবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বসে তাঁর কথা শোনেছেন শামছুল হক মিলাদ:

এসএনপিস্পোর্টস: ৩০ সদস্যের জাতীয় নারী দলের এই ক্যাম্প সম্পর্কে একটু যদি বলতেন?

নাজমুল আবেদিন ফাহিম: ৩০ সদস্যের এই ক্যাম্প বিশেষ একটি উদ্দেশ্যে শুরু হয়েছে। আমাদের এই ক্যাম্প এখানে আগামী ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে। কারণ সামনে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ কিছু সিরিজ রয়েছে। ২৮ এপ্রিল এই দল দক্ষিণ আফ্রিকায় খেলতে যাবে। সেখানে একটি সিরিজ রয়েছে ওয়ানডে ও টি-২০। এছাড়া বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব, এশিয়া কাপ’সহ গুরুত্বপূর্ণ কিছু সিরিজ রয়েছে।

এসএনপিস্পোর্টস: দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজকে সামনে রেখে এখানে কি কি বিষয়ের উপর জোর দেয়া হবে? যেহেতু ঐ জায়গায় বাউন্সি উইকেটে খেলতে হবে?

নাজমুল আবেদিন ফাহিম: সাধারণত ঐ উইকেট গুলো একটু বাউন্সি হয়। আমরা চাইলে এই মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেট তৈরি করতে পারবো না। সেটা সম্ভবও না। তবুও চেষ্টা থাকবে ঐ মাপের কাছাকাছি একটা দাঁড় করাতে। যেখানে মেয়েরা অনুশীলন করতে পারবে। পেসারদের দিকে একটু নজর আছে, তাঁদের বিশেষ ভাবে দেখভালো করা হবে। বাউন্সি কন্ডিশনে কিভাবে বল করবে। এছাড়া ব্যাটসম্যারাও গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করবে সেই অনুযায়ী আমাদের যা যা প্রয়োজন সবই করা হবে এই ক্যাম্পে।

এসএনপিস্পোর্টস: ১২-২৬ এপ্রিল প্রায় ১৫ দিনের ক্যাম্প। ইতিমধ্যে ৩দিন অতিবাহিত হয়েছে। এই ক্যাম্পে কি অনুশীলন ম্যাচও রাখা হয়েছে?

নাজমুল আবেদিন ফাহিম: দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে যেহেতু ওয়ানডে ও টি-২০ ফরম্যাটের খেলা রয়েছে সেই হিসেবে এখানে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে ওয়ানডে ও টি-২০ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাচ সংখ্যা ৪-৫টি হতে পারে। ২টি ৫০ ওভারের ম্যাচ আর বাকিগুলো টি-২০ অনুষ্ঠিত হবে।

এসএনপিস্পোর্টস: জাতীয় ক্রিকেট লিগ, রুপালি ব্যাংক আন্তর্জাতিক ক্রিকেট টুর্নামেন্ট থেকে কি নতুন মুখ খুঁজে পেয়েছেন?

নাজমুল আবেদিন ফাহিম: হ্যাঁ, আমরা ঐ আসরগুলোতে নজর রেখে ছিলাম। যেখান থেকে ভালোমানের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার খুঁজে পেয়েছি। নতুন ক্রিকেটার আসছে ৩-৪ জন। যারা এবারই প্রথম জাতীয় দলে আসলো। পুরনো অনেকেই আবার ফিরেছে। যারা জাতীয় দলের বাইরে ছিলো বেশ কিছুদিন।

এসএনপিস্পোর্টস: জাতীয় ক্রিকেট লিগ এবার টি-২০ ফরম্যাটে অনুষ্টিত হলো, সামনে কি অন্য কোন ফরম্যাট নিয়ে চিন্তা আছে?

নাজমুল আবেদিন ফাহিম: জাতীয় লিগটা ওদের ওয়ানডে ফরম্যাটে হয়ে থাকে। এবার টি-২০ বিশ্বকাপ বাছাই আছে তাই ওয়ানডে ফরম্যাটে হয় নি। সামনে ঘরোয়া ক্রিকেটের আসর বাড়ানো হবে।

এসএনপিস্পোর্টস: বছর জুড়েই মেয়েদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ তুলনামূলক ভাবে কম অনুষ্ঠিত হয়। সেই তুলনায় এবার ম্যাচ সংখ্যা বাড়ছে, সামনে কি এই দ্বারা অব্যাহত থাকবে?

নাজমুল আবেদিন ফাহিম: বেশি বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলাই কিন্তু সাফল্যের মানদন্ড নয়। আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের ম্যাচ কম হয়ে থাকে। এই দ্বারাটা আগে বাড়াতে হবে। ঘরোয়া ক্রিকেট নিয়মিত মাঠে থাকলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাফল্যে আসবে।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/১০৪