এএফসি কাপের ভেন্যু হওয়ার দৌড়ে সিলেট জেলা স্টেডিয়াম

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ করোনার কারণে ক্লাব ফুটবলের ক্ষেত্রে নিজেদের পদ্ধতিতে পরিবর্তন এনেছে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি)। হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে পদ্ধতি বাদ দিয়ে একটি কেন্দ্রীয় ভেন্যুতে খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এশিয়ার ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

আসন্ন এশিয়ান কাপের ক্লাব পর্যায়ের ম্যাচগুলো গ্রুপ অনুসারে কেন্দ্রীয় ভেন্যুতে খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এএফসি। ‘ডি’ গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস। যদি বাছাই পর্ব উতরাতে পারে ঢাকা আবাহনী তাহলে তারাও খেলবে একই গ্রুপে। এমন অবস্থায় সুযোগ থাকায় ঘরের মাঠের সুবিধা নিতে চায় বসুন্ধরা কিংস।

যার কারণে, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) মাধ্যমে গ্রুপের কেন্দ্রীয় ভেন্যু হিসেবে সিলেট জেলা স্টেডিয়ামের জন্য এএফসির কাছে আবেদন পাঠিয়েছে বসুন্ধরা কিংস। কেন্দ্রীয় ভেন্যু হতে একটি স্টেডিয়ামে চারটি ড্রেসিং রুম এবং দুটি অনুশীলন মাঠের প্রয়োজন।

বাফুফের পক্ষ থেকে আবেদনের সময় সিলেট বিকেএসপি এবং আবুল মাল আব্দুল মুহিত ক্রীড়া কমপ্লেক্সকে অনুশীলন ভেন্যু হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। একই সাথে বলা হয়েছে ম্যাচের নির্ধারিত সময়ের আগেই নতুন করে আরও দুটি ড্রেসিং রুম তৈরি হয়ে যাবে। আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও ড্রেসিং রুমের স্বীকৃতি না পেলেও, ইতিমধ্যেই সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে নবনির্মিত পাঁচ তলা বিশিষ্ট ভিআইপি ভবনে দুটি ড্রেসিং রুমের অবকাঠামো রয়েছে।

এদিকে আগেই কেন্দ্রীয় ভেন্যুর জন্য আবেদন করে ফেলেছে ভারতের ক্লাব মোহনবাগান। বসুন্ধরা-মোহনবাগানের সাথে মালদ্বীপের মাজিয়া স্পোর্টস ক্লাব ‘ডি’ গ্রুপে রয়েছে। এবার শুধু বাছাই পর্ব থেকে পেরোনো দল আসবে চতুর্থ দল হিসেবে গ্রুপটিতে নাম লেখাতে। তবে কেন্দ্রীয় ভেন্যুর বিষয়ে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবে। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ১৪-২০ মে অনুষ্ঠিত হবে গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলো।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/সা