‘কোচিং আমার ভালোবাসা, আমার আবেগ’

স্পোর্টস ডেস্কঃ খেলোয়াড়ি জীবনে ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফুটবলার ছিলেন জিনেদিন জিদান। ২০০৬ সালে সেই খেলোয়াড়ি জীবনকে বিদায় জানান তিনি। এরপর নাম লিখিয়েছেন কোচিং পেশায়। ফ্রান্সের কিংবদন্তী সেখানেও নিজেকে সেরা প্রমাণ করেছেন।

২০১২ সালে সর্বপ্রথম রিয়াল মাদ্রিদের যুব দলের কোচ হিসেবে যাত্রা শুরু করেন জিদান। এরপর যোগ দেন মূল দলের সহকারী কোচ হিসেবে। ২০১৬ সালের শুরুতে প্রথমবারের মতো মূল দলের কোচ হিসেবে লস ব্লাঙ্কোসদের সাথে। ২০১৮ সালের মাঝামাঝি সময়ে সেই দায়িত্ব ছাড়েন। পরবর্তীতে ২০১৯ সালের মার্চে ফের দায়িত্ব নেন রিয়ালের। ২০২১ সালের মাঝামাঝিতে গিয়ে সেই দায়িত্ব ছাড়েন।

দুই দফা কোচিং করিয়ে তিন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, দুই বার করে লা লিগা, উয়েফা সুপার কাপ, স্প্যানিশ সুপার কাপ, ক্লাব বিশ্বকাপ শিরোপা জেতেন জিদান। এমন সাফল্যের পর অবশ্য অন্য আর কোনো দলেরই দায়িত্ব নেননি দিন চারেক পর ৫০’এ পা দিতে যাওয়া জিদান।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইনের (পিএসজি) ও ফ্রান্স জাতীয় দলের কোচ হিসেবে বেশ আলোচনায় আছেন তিনি। এর মাঝেই এক সাক্ষাৎকারে জিদান জানালেন, কোচ হিসেবে এখনও অনেক কিছু দেওয়ার বাকি আছে তার। কোচিং পেশাকে আরও চালিয়ে নিয়ে যেতে চান তিনি। এটার প্রতি ভালোবাসা আছে তাঁর।

জিদান বলেন, ‘কোচ হিসেবে আমি এখনও অবদান রাখতে পারি কিনা? হ্যা, অনেক কিংবা আবার কিছুটা। আমি চালিয়ে যেতে চাই (কোচিং)। কেননা কোচিংয়ের প্রতি আমার ভালোবাসা রয়েছে, এটা আমার আবেগ।’

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা