খেলা-ই আমার সব : এসএনপিস্পোর্টসকে রাজ্জাক

খবর পেলেন সন্ধ্যায়। রাজ্জাকের সঙ্গে একই ফ্লাইটে এসএনপিস্পোর্টস। বিমানবন্দরে ছবি- নাজমুস সাকিব

মাত্রই দলে ডাক পেয়েছেন। রোববার সন্ধ্যার আগ মুহুর্তে বিসিবি থেকে মুঠোফোনে খবর পেয়েছেন। জানিয়ে দেওয়া হয়েছে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চট্টগ্রামের বিমানে চড়তে হবে। রাতেই যোগ দিতে হবে সাগরপাড়ে থাকা দলের সঙ্গে। আব্দুর রাজ্জাক তাই বিমানবন্দরে। ত্রিদেশীয় সিরিজ ও শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশ সিরিজ কাভার করতে যাওয়া এসএনপিস্পোর্টসের নির্বাহী সম্পাদক কাইয়ুম আল রনির সঙ্গে সৌজন্যে সাক্ষাৎ তাই হয়ে গেলো বিমানবন্দরেই।

কুশল বিনিময়ের পর অনুভূতি এবং দল নিয়ে জানতে চাইলে শুরুতেই বললেন, ভাই সবে মাত্র দলে ডাক পেয়েছি। তাছাড়া মিডিয়ায় কথা বলতে বাধ্যবাদকতা আছে। তবুও অনুরোধ রাখতে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সাক্ষাৎকার দিতে রাজি হলেন। তবে শর্ত দিলেন দল এবং টিম ম্যানেজম্যান্ট নিয়ে কোন প্রশ্ন করা যাবে না।

২০০৬ সালে চট্টগ্রামেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সাদা পোশাকে তাঁর আগমন ঘটে। সব ফরমেটেই হয়ে উঠেন স্পিন নির্ভর টিম বাংলাদেশের প্রধান অস্ত্র। ২০১৪ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি লঙ্কানদের বিপক্ষেই চট্টগ্রামে খেলে ছিলেন শেষ টেস্ট। অধিনায়ক মুশফিক রাজকে দিয়ে প্রথম ইনিংসে মাত্র ৪ ওভার বল করান।  ১ মেডেনে দিয়ে ছিলেন মাত্র ৬ রান। দ্বিতীয় ইনিংস এবং প্রথম ইনিংসে মুশফিক তাঁকে আর বোলিংয়েই আনেন নি।  প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ১১৪ ম্যাচে শিকার করেছেন ৫১০ উইকেট। প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে ৫শ ছুঁয়েছেন তিনি।  ১২টি টেস্ট ম্যাচের ক্যারিয়ারে নিয়েছেন ২৩টি উইকেট। আবারো ফেরা অভিজ্ঞ রাজ্জাকের কাছে টিম বাংলাদেশের প্রত্যাশা অনেক বেশি। তার সাথে আলাপের অংশ বিশেষ;

প্রশ্ন : রাজ্জাক ভাই, কেমন আছেন?
রাজ্জাক:  আলহামদুল্লিল্লাহ, ভালো আপনাদের দোয়ায়।

প্রশ্ন :কেমন লাগছে আবারো পুরোনো সব কিছু ঝেড়ে জাতীয় দলে ডাক পেয়ে?
রাজ্জাক: খুবই ভালো। আমি মনে করি দলকে দেয়ার মতো অনেক কিছু এখনো আছে আমার। চেষ্টা করবো শতভাগ মাঠে ঢেলে দিতে।

প্রশ্ন : ২০১৪তে বাদ পড়েছিলেন; দলের বর্তমান অবস্থা কেমন মনে করেন?
রাজ্জাক: এখন বাংলাদেশ দল অনেক পাল্টে গেছে। সবাই  খুব আন্তরিক। প্রতিযোগিতা আছে সবার মনের মাঝে। দেখুন, আমি যেহেতু সিনিয়র ক্রিকেটার, দলে সুযোগ হলে দায়িত্বটা বেশি নিয়ে খেলতে হবে। আমি আমার দায়িত্ব ঠিকঠাকভাবে পালন করতে চাই। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করার সুযোগ হয়েছে। ফিটনেস এই সময়ে ধরে রাখাটাই চ্যালেঞ্জ অনেক। তবুও ট্রাই করছি।

প্রশ্ন:: আপনার ফিটনেসের বর্তমান অবস্থা:
রাজ্জাক: ফিট আছি বলেইতো খেলে যেতে পারছি। ফিটনেস কম থাকলে বিসিএল, বিপিএল, ডিপিএল ও এনসিএলে খেলেছি কি ভাবে? ফিটনেস আছে বলেই ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলে যাচ্ছি। এটা নিয়ে কোন সমস্যা দেখছি না।

প্রশ্ন : আপনার সবধরনের ক্রিকেট মিলিয়ে ৫০০ উইকেট। কিভাবে মূল্যায়ন করেন?
রাজ্জাক: দেখুন, আমি উইকেট নিয়ে মাথায় ঘামাইনা, কি হলো, না হলো এসব নিয়ে ভাবিনা। খেলাটাই আমার কাছে সব। দোয়া রাখবেন, যাতে কিছুদিন থাকতে পারি দলের সাথে।

প্রশ্ন:  চট্টগ্রামেই ২০১৪ সালে শেষ টেস্ট ম্যাচ খেলে ছিলেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে, প্রত্যাবর্তনটাও একই দলের বিপক্ষে?
রাজ্জাক: হ্যাঁ। এদের বিপক্ষে চট্টগ্রামেই খেলে ছিলাম ওই ম্যাচটা। এরপর কেটে গেছে অনেক বছর। বদলে গেছে অনেক কিছু।

প্রশ্ন:  হাথুরুসিংহে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নেওয়ার পর আপনি দলে ছিলেন না। এবার তিনি প্রতিপক্ষ দলের কোচ এবং আপনি দলে?
রাজ্জাক: কোচ কে আসছেন, গেছেন বা কে কোচ তা নিয়ে আমি ভাবছি না। আমি খেলতে চাই আমার স্বাভাবিক খেলাটা।

প্রশ্ন: দলে ফিরেছেন দীর্ঘ দিন পর। ভক্ত-সমর্থকদের অনেক প্রত্যাশা আপনার কাছে?
রাজ্জাক: প্রত্যাশা সকলেরই আছি। সবাই দোয়া করবেন যেনো ভালো কিছু করতে পারি। সবার চাওয়াটা পূরণ হয়। অনেক দিন দলের বাইরে ছিলাম। মাত্রই ফিরেছে। চেষ্টা করবো কিছু একটা করতে।

প্রশ্ন: সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ ভাই।
রাজ্জাক: আপনাদেরও।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/০০