চোট কাটিয়ে জাতীয় দলের ক্যাম্পে ডাক পেলেন সিলেটের জনি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ গত আগস্টে আফগানিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের আগে প্রস্তুতির সময় মাসুক মিয়া জনির পায়ের লিগামেন্ট ছিঁড়েছিল। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুশীলনের সময় সতীর্থ বিশ্বনাথ ঘোষের সঙ্গে সংঘর্ষ হলে সেই সময় গুরুতর আহত হন তিনি। কোচ জেমি ডে তাকে সেবার তাজিকিস্তানে নিয়ে গেলেও গত বছরের ১০ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি খেলতে পারেননি বসুন্ধরা কিংসের এ মিডফিল্ডার। পরে রাজধানীর একটি হাসপাতালে তার পায়ের অপারেশন হয়।

জাতীয় দলের ম্যাচে কিংবা ক্যাম্পে থাকাকালীন কোনো ফুটবলার ইনজুরিতে পড়লে ফিফা সহায়তা দিয়ে থাকে। সেই সুবাদে সিলেটের এই ফুটবলার ফিফা থেকে চিকিৎসার জন্য প্রায় সাড়ে ১৩ লাখ টাকা পান। দীর্ঘদিন চিকিৎসা করিয়ে ফিট হয়েছেন জনি। এবার তাঁকে আবারো জাতীয় দলের ক্যাম্পে ডাকা হয়েছে।

কাতার বিশ্বকাপের বাছাইকে সামনে রেখে প্রাথমিক ক্যাম্পের জন্য ৩৬ জন ফুটবলারের নাম ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। অক্টোবর ও নভেম্বরে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে খেলবে বাংলাদেশ। ঘোষিত এই দলে ফিরেছেন জনি। এছাড়া আরো একাধিক নতুন ফুটবলারকে রাখা রয়েছে ক্যাম্পের প্রাথমিক স্কোয়াডে।

প্রথমবারের মত দলে যুক্ত হয়েছেন ফিনল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশি ফুটবলার তারিক কাজী, নাজমুল ইসলাম রাসেল (বাংলাদেশ পুলিশ), এম এস বাবলু (বাংলাদেশ পুলিশ) ও সুমন রেজা (উত্তর বারিধারা)।

প্রসঙ্গত, বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাই ‍পর্বে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান ম্যাচটি সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে আয়োজনের সিদ্ধান্ত আগেই নেওয়া হয়েছে। পরে জানা যায় বাছাই পর্বে হোম ম্যাচের বাকি দুটিও একই ভেন্যুতে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। অর্থাৎ, ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ঘরের মাঠের তিনটি ম্যাচই হতে যাচ্ছে সিলেটে।

ক্যাম্পে ডাক পাওয়া ৩৬ ফুটবলার-

গোলরক্ষক: আশরাফুল ইসলাম রানা, আনিসুর রহমান জিকু, শহিদুল আলম সোহেল ও পাপ্পু হোসেন।

ডিফেন্ডার: তপু বর্মন, ইয়াসিন খান, বিশ্বনাথ ঘোষ, সুশান্ত ত্রিপুরা, টুটুল হোসেন বাদশা, রায়হান হাসান, রহমত মিয়া, ইয়াসিন আরাফাত, তারিক রায়হান কাজী ও মনজুরুর রহমান মানিক।

মিডফিল্ডার: আতিকুর রহমান ফাহাদ, রবিউল হাসান, বিপলু আহমেদ, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, মাসুক মিয়া জনি, মামুনুল ইসলাম মামুন, সোহেল রানা, মোহাম্মদ আরিফুর রহমান, রিয়াদুল হাসান, জামাল ভূঁইয়া, মানিক হোসেন মোল্লা, রাকিব হোসেন ও নাজমুল ইসলাম রাসেল।

ফরোয়ার্ড: মাহবুবুর রহমান সুফিল, মতিন মিয়া, তৌহিদুল আলম সবুজ, সাদ উদ্দিন, নাবিব নেওয়াজ জীবন, ফয়সাল আহমেদ ফাহিম, মো. আবদুল্লাহ, ম্যাথিউজ বাবলু ও সুমন রেজা।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/১১০