জাভেদের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে বড় লিডের পথে সিলেট

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আগের দিন শিকার করেছিলেন ৩ উইকেট। দ্বিতীয় দিনে সেটিকে এগিয়ে নিয়ে গেলেন আরও দূরে। নামের পাশে যোগ করেছেন আরও ৪টি উইকেট। সব মিলিয়ে ৭ উইকেট নিয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগারের দেখা পেয়েছেন সিলেটের রাহাতুল ফেরদৌস জাভেদ।

এই স্পিন অলরাউন্ডারের ৭ উইকেটে জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) টায়ার-১’এ ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে দ্বিতীয় রাউন্ডে বড় লিড নিয়েছে সিলেট বিভাগ। প্রথম ইনিংসে সিলেটের করা ৩৭০ রানের বিপরীতে ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ঢাকা অলআউট হয়েছে ২৮০ রানেই। আগের দিন ৮৯ রানে অপরাজিত থাকা শুভাগত হোম কক্সবাজারে এদিন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের ১৩তম সেঞ্চুরি পূরণ করেছেন।

১৩৩ বলে ১৩ চার ও ২ ছক্কায় দলের সর্বোচ্চ ১১৪ রান করে বিদায় নেন এই জাভেদের বলে বোল্ড হয়েই। শুভাগত ছাড়াও জাভেদ একে একে তুলে নিয়েছেন ঢাকার সাইফ হাসান, তাইবুর রহমান, অধিনায়ক নাদিফ চৌধুরি, আরাফাত সানি জুনিয়র, নাজমুল ইসলাম ও সালাউদ্দিন শাকিলের উইকেট।

সিলেটের হয়ে এর আগে রাহাতুল ফেরদৌস জাভেদ ২২.১ ওভার বল করে ৩ মেইডেনসহ ৭৫ রান খরচায় ৭ উইকেট লাভ করেন। ইকোনোমি রেট ৩.৩৮। এটিই এই বাঁহাতি স্পিনারের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ইনিংস সেরা ফিগার। আগের ইনিংস সেরা ফিগারটি ছিল ৪৮ রানে ৫ উইকেট। একইসাথে নিশ্চিতভাবেই সেরা ম্যাচ ফিগারও দেখতে চলেছেন। কেননা এর আগে ২৫ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারের ম্যাচের সেরা ফিগার ৭৭ রানে ৬ উইকেট। ইতিমধ্যেই এক ইনিংসে ৭ উইকেট তুলে নিয়ে তাই সেটিকে টপকে যাওয়ার অপেক্ষায় আছেন তিনি। জাভেদ ছাড়াও অভিষিক্ত তানজিম হাসান সাকিব ২টি ও রুয়েল মিয়া ১টি উইকেট লাভ করেন।

৯০ রানের লিড নিয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেছে সিলেট। তবে পঞ্চম ওভারে দলীয় ৯ রানের মাথায়ই ওপেনার শেহনাজ ১ রান করে সুমন খানের বলে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন। এরপর ৩৩ রানের জুটি গড়ে অমিত ও রিজভী দলকে আশা দেখালেও এখন বেশ বিপাকেই রয়েছে সিলেট। আরও তিন উইকেট হারিয়ে ফেলেছে দল। রিজভী ৩১, অমিত ১১ ও জাকের আলি অনিক ২ রান করে ফিরে গেছেন। তবে লিডের কোটা ইতিমধ্যেই পেরিয়েছে ১৫০’র ওপর।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/সা