জুনায়েদের অর্ধশতক, সিলেট-সুনামগঞ্জের ম্যাচ ড্র

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:: বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় অনুষ্টিত সিলেট বিভাগীয় অনূর্ধ্ব-১৮ ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশিপে সিলেট জেলা অনূর্ধ্ব-১৮ ক্রিকেট দলের সঙ্গে ড্র করেছে সুনামগঞ্জ জেলা অনূর্ধ্ব-১৮ ক্রিকেট দল।

দু’দিনের ম্যাচটির শেষ দিনে রোববার সুনামগঞ্জের হয়ে দারুণ ব্যাট করেছেন তরুণ ব্যাটসম্যান জুনায়েদ আহমদ। অল্পের জন্য সেঞ্চুরিতে ‘বঞ্চিত’ এই ব্যাটসম্যানের ব্যাটেই ব্যাটেই দ্বিতীয় ইনিংসে লড়াইয়ের পুঁজি পায় সুনামগঞ্জ।

প্রথম ইনিংসে সুনামগঞ্জের ১১৪ রানের জবাবে সিলেট করে ১২৩ রান। দ্বিতীয় ইনিংসে সুনামগঞ্জ ৮ উইকেটে ১৫২ রান সংগ্রহ করে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে। জবাবে সিলেট দিন শেষে ৭ উইকেটে ৮১ রান সংগ্রহ করলে ম্যাচটি ড্র হয়ে যায়।

দু’দিনের ম্যাচটিতে ব্যাট হাতে সুনামগঞ্জের ব্যাটসম্যানরা আলো ছড়িয়েছেন। প্রথম ইনিংসে দলটির পেসার তোফায়েল অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন। দ্বিতীয় ইনিংসে জুনায়েদ করেছেন ৯০ রান। তবে বল হাতে বেশ সফল ছিলেন সিলেটের বোলাররা। প্রথম ইনিংসে শাফি ও অর্ক ৪টি করে উইকেট পেলেও দ্বিতীয় ইনিংস বক্কর নিয়েছেন ৫টি উইকেট। প্রথম ইনিংসে সুনামগঞ্জের হয়ে নুহাসও নিয়েছেন ৫টি উইকেট।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শনিবার সুনামগঞ্জ জেলা অনূর্ধ্ব-১৮ ক্রিকেট দল সিলেটের বোলারদের তোপের মুখে পড়ে। মাত্র ২৪ রানে সাত উইকেট হারানো সুনামগঞ্জ শেষ দিকে তোফায়েলের লড়াকু অর্ধশতকে দলীয় শতক পার করে। শেষ পর্যন্ত ১১৪ রানে অলআউট হয় দলটি।

সুনামগঞ্জের হয়ে ইনিংস সর্বোচ্চ ৬৮ রান করে অপরাজিত থেকেছেন তোফায়েল আহমদ। তাকে আর কেউ সঙ্গ দিতে পারেননি। তোফায়েল এক প্রান্ত আগলে রেখে লড়াই করলেও অন্যরা কেবল যাওয়া আসার মিছিল করছেন। ৫৩ ওভারে ১১৪ রানেই অলআউট হয়ে যায় দলটি। তোফায়েল ছাড়া দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৩ রান করেছেন মুস্তাবিদ মিহাদ।

সিলেটের হয়ে অর্ক ৪টি ও শাফি ৪টি উইকেট লাভ করেন।

প্রতিপক্ষ সুনামগঞ্জকে প্রথম ইনিংসে অল্পতে আটকে দিয়ে সিলেট অনূর্ধ্ব-১৮ দলের ক্রিকেটাররা নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেও সুবিধা করতে পারেননি। ৮৮ রান সংগ্রহ করতেই প্রথম সারির ৫জন ব্যাটসম্যানকে হারালেও লিড নিয়েছে দলটি। অলআউট হয়েছে ১২৩ রানে। সিলেটের হয়ে ২৩ রান করে আউট হয়েছেন রানা। ১৮ রান করেছেন আহমেদ তাহসিন। এছাড়াও অর্ক ২৩ ও বক্কর ১১ রান করেছেন।

সুনামগঞ্জের হয়ে নুহাস ৫টি ও তোফায়েল ২টি উইকেট লাভ করেছেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে সুনামগঞ্জ ৮ উইকেটে ১৫২ রান করে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে। দলের হয়ে জুনায়েদ ্হামদ ৭৮ বলে ৯০ রানের ঝলমলে এক ইনিংস খেলেন। মিহাদ করেন ২৫ রান।

সিলেটের হয়ে বক্কর ৫টি, আবিদ ৩টি উইকেট লাভ করেন।

সিলেট দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৭ উইকেটে ৮১ রান সংগ্রহ করলে দিনের খেলা শেষ হয়ে যায়। দলের হয়ে তরিকুল ইনিংস সর্বোচ্চ ৪২ রান করেছেন। ফরাস করেছেন ১১ রান।

সুনামগঞ্জের হয়ে তোফায়েল, নুহাস ও নিহাল ২টি করে উইকেট লাভ করেছেন।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/০০