টাকার অভাবে বিএমডব্লিউ গাড়ি বিক্রি করছেন ভারতীয় খেলোয়াড়

স্পোর্টস ডেস্ক:: করোনাভাইরাসের কারণে স্পন্সররা চলে যাচ্ছেন, আর্থিক সঙ্কট কাটাতে তাই নিজের বিএমডব্লিউ গাড়ি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভারতের হয়ে রেকর্ড সৃষ্টিকারী অ্যাথলেট দ্যুতি চাঁদ। ১০০ মিটার স্প্রিন্টে সর্ভভারতে রেকর্ডধারী এই অ্যাথলেট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গাড়ি বিক্রির বিজ্ঞপ্তিও দিয়েছেন।

৩০ লাখ রুপিতে কেনা বিএমডব্লিউ গাড়িটি দ্যুতি চাঁদের বেশ সখের ছিলো। নানা সময় গাড়ির সঙ্গে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্টও করতেন তিনি। তবে নিবিড় প্রশিক্ষণ চালিয়ে যাওয়ার জন্য আর্থিক সঙ্কট কাটাতে তিনি গাড়ি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

অলিম্পিক পিছিয়ে গেছে। তাই স্পন্সরররা আর এগিয়ে আসছে না। যার কারণে নিজের খরছ মেটানো দায় হয়ে পড়েছে। করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ দিন থেকে খেলাধুলাও বন্ধ। জমানো অর্থও প্রায় ফুরিয়ে আসছে। গাড়ি বিক্রির বিজ্ঞপ্তিতে ফেসবুক পোস্টে দ্যুতি চাঁদ লিখেন, ‘আমি আমার বিএমডব্লিউ গাড়িটা বিক্রি করতে চাই। কেউ যদি কিনতে আগ্রহী হন, তাহলে মেসেঞ্জারে যোগাযোগ করুন।’

করোনার কারণে খেলাধুলা নেই। অলিম্পিওক পিছিয়েছে জানিয়ে র‌্যাডিফ ডটকমকে দ্যুতি বলেন, ‘‌করোনা মহামারির কারণে সব ধরনের প্রতিযোগিতা বাতিল হয়ে গেছে। অলিম্পিকের স্পন্সরশিপও নেই। গত কয়েক মাসে জমানো অর্থ শুধু খরচই হয়েছে। আয় কিছুই হয়নি। এই পরিস্থিতিতে নতুন কোনো স্পন্সরও জুটবে না। তাই হাতে একটাই উপায়। গাড়িটা বিক্রি করে দেওয়া।’‌

অলিম্পিক পিছিয়ে যাওয়ায় সবকিছু এলেমেলো হয়ে গেছে জানিয়ে তিনি বলেন ‘ফেসবুকে গাড়িটা বিক্রি করার সিদ্ধান্ত জানানোটা ছিল আসলেই কঠিন। যদি এবার অলিম্পিক গেমস অনুষ্ঠিত হতো, তাহলে সব কিছুই ঠিক থাকতো। কিন্তু এবারের অলিম্পিক এক বছর পিছিয়ে যাওয়ার কারণে সব এলোমেলো হয়ে গেলো।’

গাড়ী বিক্রিতে মন খারাপ নেই, খেলাধুলা ফিরলে আয় রোজগারও হবে। তাই আবারো গাড়ি কিনবেন জানিয়ে দ্যুতি চাঁদ বলেন, , ‘‌না, খারাপ লাগছে না। প্রতিযোগিতা ছিল বলেই গাড়িটা কিনতে পেরেছিলাম। আবার যখন খেলব, উপার্জন করব আর নিজের জন্য দামী গাড়ি কিনব। সুতরাং, আপাতত ওসব চিন্তা না করে অলিম্পিকেই ফোকাস করছি।’‌

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০