টেস্ট অধিনায়কত্ব, সাকিবের কাছে নিয়মিত হওয়ার নিশ্চয়তা চায় বিসিবি!

    নিজস্ব প্রতিবেদক:: মুমিনুল হক নিজেই সরে গেছেন টেস্ট অধিনায়কত্ব থেকে। মঙ্গলবার বিকেলে বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপনসহ শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সন্ধ্যায় তিনি নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান।

    বেশ কয়েক দিন থেকে ফর্মে নেই মুমিনুল। তার ব্যাটে রান খরায় হতাশ সমর্থকেরা। বিশেষ করে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট অধিনায়কের’ হতশ্রী’ পারফর্ম ভাবিয়ে তুলে বিসিবিকেও। বোর্ডের শীর্ষ মহলেই গুঞ্জন ছিলো, অধিনায়ক মুমিনুলকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে। যদিও তার আগেই তিনি নিজ থেকে সরে গেছেন।

    টেস্টে বাংলাদেশের সেরা ব্যাটার মুমিনুল হক। সাদা পোশাকে মাঠে নামা মানেই তার ব্যাটে শতক, অর্ধশতক ছিলো নিয়মিত ব্যাপার। সেই তিনি বেশ কিছু দিন ধরে ফর্মে নেই। বাজে সময় কাটাচ্ছিলেন। অনেক ক্রীড়া বিশ্লেষকই পারফর্মার মুমিনুলকে ফিরে পেতে, তাঁকে নেতৃত্ব ছাড়ার পরামর্শ দিয়ে ছিলেন।

    সামেনই ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এই মুহুর্তে বিসিবির কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হলো টেস্ট অধিনায়ক নির্ধারণ করা। এ ক্ষেত্রে সবার শীর্ষে আছে সাকিব আল হাসানের নাম। এই অলরাউন্ডার আগেও দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। বিসিবিরও পছন্দে তিনি। তবে এবার তাঁর হাতে নেতৃত্ব তুলে দেওয়ার আগে বোর্ড সাদা পোশাকে নিয়মিত খেলার নিশ্চয়তা চাইছে তার কাছে।

    সাকিব যখন তখন ছুঁটি নিয়ে নেন, বিশেষ করে টেস্টে তার কিছুটা অনীহা আছে। বেশ কয়েক দিন থেকে তিনি টেস্টে অনিয়মিত। অনেকটা জোর করেই তাঁকে খেলা হচ্ছে বিসিবিকে। অনেক সময় বিসিবি চাইলেও তিনি খেলেন না। চলে যান ছুঁটিতে। অবস্থা এমন তার যখন মন চায় তিনি তখনি খেলেন। বোর্ড চাইলেও সব সময় পায় তাঁকে।

    এবার টেস্ট নেতৃত্ব তার কাঁধে তুলে দেওয়ার আগে বিসিবি তাই সাদা পোশাকে নিয়মিত হওয়ার নিশ্চয়তা চাইছে। সাকিব যদি নিয়মিত খেলার প্রতিশ্রুতি দেন, তবেই বিসিবি হয়তো তাঁকে টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে মনোনীত করবে। বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন একটি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন তিনি এ বিষয়ে কথা বলবেন সাকিবের সাথে।

    অধিনায়ক হিসেবে সাকিবের নাম আলোচনায় আছে জানিয়ে নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘শুনলাম একজন আমাকে সাকিবের কথা বলছে। ব্যাপারটা হচ্ছে সাকিব তো তিনটারই ছিলো (সব ফরম্যাটের অধিনায়ক ছিলেন)। সাকিব তো হতেই পারে। কিন্তুু তার আগে আমাকে জানতে হবে সাকিব খেলবে কিনা। ও কোনটা খেলবে, কোনটা খেলবে না? অধিনায়ক হলে তো এটা করা যাবে না। আগে জানতে হবে ওর পরিকল্পনা কি?’

    সাকিব নিয়মিত খেলবেন কিনা সেটা জানতে তার সঙ্গে বসবেন জানিয়ে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান বলেন, ‘সাকিবের একটা জিনিস আমি জানি না। কখন বলবে আমি খেলব না। শেষ মুহূর্তে বলবে আমি খেলব না। এইগুলো হলে তো সমস্যা। ওকে অদিনায়ক করতে হলে ওর সঙ্গে তো বসতে হবে। এটা খেলব না, ওটা খেলব না, এটা তো হবেনা।’

    এই অলরাউন্ডার নিয়মিত টেস্ট খেলার নিশ্চয়তা দিলে, তার কাঁধেই উঠবে টেস্টের নেতৃত্ব। বিসিবির শীর্ষ কর্তারাও চাইছেন তাকে অধিনায়ক করতে। ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত সাকিব সব সময়ই দলের প্রেরণা। দলের সেরা তারকা মাঠে নেতৃত্বেও দারুণ। সামন থেকেই নেতৃত্ব দেবেন তিনি এটাই প্রত্যাশা সমর্থকদের।

    এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/০০