টোকিও অলিম্পিকে অংশ নিচ্ছেন না সেরেন উইলিয়ামস!

স্পোর্টস ডেস্কঃ দরজায় কড়া নাড়ছে টোকিও অলিম্পিক। আর মাত্র মাস তিনেক পরই ক্রীড়া বিশ্বের সবচেয়ে বড় আসর বসার কথা জাপানে। গেল বছর আসরটি আয়োজন করার কথা থাকলেও, করোনা মহামারীর কারণে এক বছর পিছিয়ে যায় সেটি। তবে পিছিয়ে গিয়েও সেটি আয়োজন সম্ভব হবে কিনা, সেটি নিয়েও এক ধরনের শঙ্কা। কেননা জাপানের করোনা পরিস্থিতি খুব একটা ভালো নয়। পুনরায় লকডাউনের বিষয়ে ভাবছে দেশটি।

অলিম্পিক আয়োজন নিয়েই যেখানে শঙ্কা, সেখানে আরও একটি শঙ্কার কথা জানিয়েছেন সেরেনা উইলিয়ামস। চলতি সপ্তাহেই ইতালিয়ান ওপেনে খেলবেন এই মার্কিন টেনিস কিংবদন্তী। সেটা দিয়ে প্রস্তুতি সারবেন ফরাসি ওপেনের। সেই টুর্নামেন্টের আগে অলিম্পিক আয়োজকদের হতাশ করে ইঙ্গিত দিয়েছেন এবারের অলিম্পিক আসরে না খেলার। চার বারের অলিম্পিক স্বর্ণ জেতা সেরেনা মনযোগ দিচ্ছেন গ্র্যান্ড স্ল্যামের আসরগুলোর দিকেই। এছাড়া মেয়ে অলিম্পিয়াকে ছেড়ে এতদিন থাকা সম্ভব নয়ও বলে জানিয়েছেন।

সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করলেও ৩৯ বছর বয়সি এই তারকা বলেন, ‘আমি তো ওকে (মেয়ে অলিম্পিয়া) ছাড়া ২৪ ঘণ্টাও কখনও থাকি না। যে মেয়েকে ছাড়া আমি এক দিনও থাকি না, তখন টোকিওতে আমার যাওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে প্রশ্নের কী ধরনের উত্তর হতে পারে, সেটা আশা করি সবাই বুঝতেই পারছেন।’

২৪টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের রেকর্ডকে পাখির চোখ করে রাখা সেরেনা আরও বলেন, ‘সত্যি বলতে, আমি টোকিওতে খেলার বিষয়ে সেভাবে কিছু ভাবিনি এখনও। এর একটা কারণ, গত বছর গেমস হওয়ার কথা ছিল। পিছিয়ে গিয়ে এটা এই বছরে হচ্ছে। এছাড়া মহামারির বিষয় তো আছেই। তাই আমাকে সবদিক ভেবে-চিন্তেই যা করার করতে হবে। আমি তো বেশি করে এখন গ্র্যান্ড স্ল্যামে খেলতে চাই। এর মধ্যে অলিম্পিকে যাওয়া একটু বাড়াবাড়িই হয়ে যাবে।’

উল্লেখ্য, ক্যারিয়ারে সবশেষ ২০১৭ সালে অস্ট্রেলিয়া ওপেন জিতে নিজের নামের পাশে ২৩তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম যুক্ত করেন সেরেনা। এরপরই সন্তানের জন্মের জন্য টেনিস থেকে বিরতি নেন। সেখান থেকে ফিরে, বেশ কয়েকটি টুর্নামেন্টে অংশ নিলেও সেরার মুকুট পড়তে পারেননি। সবশেষ অস্ট্রেলিয়া ওপেনের আসরে খেলে সেমিফাইনালে নাওমি ওসাকার কাছে হেরে বিদায় নিতে হয়েছে সেরেনাকে। এরপর থেকে আর কোনও প্রতিযোগিতায় এখন পর্যন্ত খেলেননি তিনি।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা