ডোপিং কেলেঙ্কারিতে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ কাজী অনিক

ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ তরুণ পেসার কাজী অনিককে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। প্রতিভাবান এই পেসারকে ডোপিং কেলেঙ্কারির জন্য শাস্তি দেওয়া হয়েছে। এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি আজ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

২০১৮ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে পারফর্ম করে সবার নজরে আসেন কাজী অনিক। বিপিএলেও ছড়ান আলো। তবে এর আগে সেই বছরই ৬ নভেম্বর ডোপ টেস্ট করানো হয় অনিককে। পরবর্তীতে আসা রিপোর্টে তার শরীরে নিষিদ্ধ বস্তুর সন্ধান মেলে। যার ফলে সর্বশেষ বিপিএল, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটসহ খেলতে পারেননি অন্যান্য টুর্নামেন্ট।

অ্যান্টি ডোপিং কাণ্ডের নিয়ম ভঙ্গ করেছেন এই ক্রিকেটার। নিজের দোষ স্বীকার করে শাস্তিও মেনে নিয়েছেন তিনি। এরপরই দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয় ক্রিকেট থেকে। অনিকের শাস্তি কার্যকর হয় গত ২০১৯ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে। আগামি ২০২১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত থাকবে এই নিষেধাজ্ঞা বহাল। ইতিমধ্যেই অতিক্রম হয়ে গেছে বছর দেড়েক।

জানা গেছে, নিষেধাজ্ঞার দুই মাস আগে থেকে অনুশীলনে ফিরতে পারবেন ২১ বছর বয়সী এই বাঁহাতি পেসার। বয়সভিত্তিক ক্রিকেট থেকেই অনিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপনে ব্যতিব্য্যস্ত ছিলেন এই ক্রিকেটার। নিজের দুর্দান্ত প্রতিভাকে করেছেন অপচয়। যার সর্বশেষ ধাপ ছিল এই নিষেধাজ্ঞা। এর জন্য হয়েছে সমালোচনার শিকারও।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপসহ বয়সভিত্তিক দলের হয়ে খেলেছেন তিনি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে খেলেছেন ৪টি ম্যাচ। এছাড়া ২৬টি লিস্ট ‘এ’ ও ৯টি স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ম্যাচে খেলেছেন অনিক। ২০১৭ সালে রাজশাহী কিংস ও ২০১৯ সালে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলেছেন বিপিএল।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/সা