নির্বাচক নান্নুর বিষয়টি দেখবেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন

স্পোর্টস ডেস্ক:: এমনিতেই আলোচনা-সমালোচনায় ছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। দল নির্বাচন করা নিয়ে বেশ আলোচনায় ছিলেন। তার কাজকর্ম নিয়েও সমালোচনা হচ্ছিলো প্রচুর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রসাত্মক মন্তব্যও হচ্ছে নির্বাচককে নিয়ে। এসব হয়তো তিনি দেখছিলেন, তার জন্যই ভেতরে ভেতরে হয়তো কিছুটা ক্ষুব্ধও ছিলেন।

সেই ক্ষুব্ধতা প্রকাশ পেলো বেসরকারি একটি টেলিভিশন চ্যানেলে লাইভে। জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল নান্নুকে বা অন্য কোনো নির্বাচককে সরাসরি উদ্দেশ্যে করে না বললেও জানিয়ে ছিলেন, নির্বাচকদের মেয়াদ নির্দিষ্ট করা উচিত। ৩-৪ বছর পরপর নির্বাচক পদে নিয়োগ দেওয়া হলে ভাল হয়। তারা একটা বিশ্বকাপ থেকে আরেকটা বিশ্বকাপ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করলেন।

এরপরই নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু আশরাফুলকে নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করেন। জানান, ক্রিকেটার আশরাফুল দেশদ্রোহী এবং ফিক্সার। সে ম্যাচ ফিক্সিং করে নিষিদ্ধ হয়ে এসেছে। তার থেকে ভাল কোনো পরামর্শ আশা করা যায় না।

ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের অধীনেই কাজ করে নির্বাচক প্যানেল। বিষয়টি তাই শেষ পর্যন্ত গড়িয়েছে ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের কাছে। ক্রিকেট অপারেশন্সের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জালাল ইউনুস জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে আলাপ হয়েছে বিসিবিতে। একজন বর্তমান ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে এভাবে কথা বলতে পারেন না নির্বাচক। বিষয়টি বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনকে জানানো হবে।

বোর্ড পরিচালক ও অপারেশন্স বিভাগের চে‍য়ারম্যান মোহাম্মদ জালাল ইউনুস সাংবাদিকদের বলেন, ‘সে (আশরাফুল) একজন বর্তমান খেলোয়াড়, আবার সাবেক অধিনায়কও অবশ্যই। যেহেতু সে এখনো আমাদের অধীনে খলছে, সেহেতু এভাবে ব্যক্তিগত আক্রমণ করা ঠিক হয়নি। আমি শুনেছি এটা যেটা হয়েছে, এটা নিয়ে আমাদের আলাপও হয়েছে। দেখা যাক, এটা নিয়ে আমরা বোর্ড সভাপতির সাথে আলাপ করবো।’

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনকে বিষয়টি জানানো হবে জানিয়ে মোহাম্মদ জালাল ইউনুস সাংবাদিকদের বলেন ‘কারো ব্যাপারেই এভাবে আক্রমণ… আপনি একটা অবস্থানে আছেন বোর্ডের। ঐ জায়গা থেকে এটা না করাটাই ভালো হতো। যেহেতু নির্বাচক প্যানেল আমাদের ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের আওতায়, আমরা এটা নিয়ে আজকেও আলাপ করেছি। এখন বোর্ড সভাপতি সাথেও কথা বলবো।’

বিপিএলে ম্যাচ ফিক্সিং করে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন আশরাফুল। পরবর্তীতের নিজের ভুল স্বীকার করে দেশবাসীর কাছে ক্ষমাও চান তিনি। বিসিবির নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরেন ক্রিকেটে। এরপর বিপিএল খেলেন। কিন্তুু বিপিএলের অষ্টম আসরে দল পাননি দেশের ক্রিকেটের এই প্রথম সুপার স্টার। যদিও আশরাফুল এখনো স্বপ্ন দেখেন জাতীয় দলে ফিরবেন ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করে।

তবে এবার নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুকে দোষছেন তিনি। জানিয়েছেন, নির্বাচক নান্নুর কারণেই তিনি দলে ফিরতে পারছেন না। বিসিবির প্রধান নির্বাচক তাকে পছন্দ করেন না। বিপিএলে আশরাফুল যখন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে খেলেন, তখন দলটির ম্যানেজার ছিলেন মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। চট্টগ্রামের একাদশে তেমন একটা সুযোগ মিলেনি আশরাফুলের। তখন থেকেই গুঞ্জন নির্বাচক নান্নুর সাথে বিরোধ চলছে আশরাফুলের। এই ঘটনায় যা আরেকবার সামনে এলো।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০