নিয়ে ছিলেন প্লাজমা থেরাপিও, করোনায় না ফেরার দেশে ক্রিকেটার

স্পোর্টস ডেস্ক:: করোনায় আক্রান্ত হয়ে একজন ক্রিকেটার মারা গেছেন। তাঁকে বাঁচাতে সর্বোচ্চ চেষ্টাই করে ছিলেন চিকিৎসকরা। দেওয়া হয়ে ছিলো প্লাজ থেরাপিও। তবুও ফেরানো যায়নি ভারতের ক্রিকেটাঙ্গণের পরিচিত মুখ সঞ্চয় দোবাল।

ভারতের করোনাভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করেছে। প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় শীর্ষ চারে পৌঁছে গেছে ভারত। দেশটির সাবেক ক্লাব ক্রিকেটার সঞ্চয় দোবাল ভারতীয় ক্রিকেটে বেশ পরিচিত মুখ ছিলেন।

দীর্ঘ দিন খেলেছেন ক্লাব ক্রিকেটে। দিল্লীর ক্লাব ক্রিকেটে সঞ্জয় জনপ্রিয়ও ছিলেন। খেলুয়াড়ি জীবন শেষে দিল্লী অনূর্ধ্ব-২৩ দলের কোচিং স্টাফের সদস্য হয়ে কাজ করেছিলেন তিনি। দিল্লি ডিস্ট্রিক্ট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের (ডিডিসিএ) এক কর্মকর্তা পিটিআইকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ডিডিসিএ’র ওই কর্মকর্তা জানান, ‘দোবালের করোনার লক্ষণ দেখা দিয়েছিল এক সপ্তাহ আগেই। প্রথমে তাকে বাহাদুরগড়ের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানেই তার করোনা টেস্ট করার পর পজিটিভ রিপোর্ট আসে। তবে তার অবস্থার অবনতি হলে দ্বারকা হাসপাতালে নেয়া হয়। তাকে প্লাজমাও দেয়া হয়েছিল; কিন্তু সব চেষ্টা ব্যর্থ করে চলে গেলেন না ফেরার দেশে।’

সঞ্চয়ের দুই ছেলেও ক্রিকেট খেলছেন। বড় ছেলে সিদ্ধান্ত রাজস্থানের হয়ে প্রথম শ্রেণীল ক্রিকেটে খেলেছেন। ছোট ছেলে একানশ দিল্লী অনূর্ধ্ব-২৩ দলে খেলছেন। দিল্লীর ফিরোজ শাহ কোটলায় ক্রিকেট পরিবার হিসেবেই পরিচিত তাদের পরিবারটি। বিখ্যাত সনেট ক্লাবে বেশ কিছু দিন খেলেন ধোবাল।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০