পাকিস্তানে ক্রিকেট ম্যাচে সন্ত্রাসী হামলা

স্পোর্টস ডেস্কঃ ২০০৯ সালে পাকিস্তানের লাহোরে শ্রীলঙ্কা দলের উপর ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার পর কেটে গেছে ১২টি বছর। এই সময়ে একটূ একটু করে নিজেদের গড়ে তুলেছে পাকিস্তান। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দেশটিতে ফিরেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। আস্তে আস্তে দেশটিতে ভ্রমণ করতে নিরাপদ মনে করছেন বিভিন্ন দেশের ক্রিকেট বোর্ড ও ক্রিকেটাররা।

তবে এবার আরও একটি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ঘটেছে দেশটিতে। ক্রিকেট ম্যাচে এলোপাতাড়ি গুলি শুরু করে সন্ত্রাসীরা। পাকিস্তানি গণমাধ্যম দ্যা নিউজের তথ্যমতে, গতকাল বৃহস্পতিবার খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে ওরাকজাই জেলায় আমন ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি গুলি করেছে।

সেই সন্ত্রাসী হামলার পর স্বাভাবিকভাবেই পণ্ড হয়ে গেছে ফাইনাল ম্যাচটি। তবে মেলেনি কোনো হতাহতের খবর। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় ফাইনাল ম্যাচটি অনেক দর্শক ছিলেন। স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গসহ সংবাদকর্মীরাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তবে ম্যাচের শুরুতেই ভর করে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির। মাঠের পার্শ্ববর্তী পাহাড় থেকে সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে থাকে।

সেই গুলি থেকে বাঁচতে খেলোয়াড়, আম্পায়ার, রাজনৈতিক ব্যক্তি, সংবাদকর্মী, দর্শক যে যার মতো পেরেছেন নিরাপদ স্থানে দৌড়ে আশ্রয় নিয়েছেন। ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছেন সবাই। কারও গায়ে লাগেনি গুলি। গোলাগুলির বেশি হওয়াতে আয়োজকরা ম্যাচ বাতিল করতে বাধ্য হন।

এই বিষয়ে ওরাকজাই জেলার পুলিশ জানিয়েছে, পাহাড়ি এলাকাটিতে সন্ত্রাসীদের আনাগোনার খবর তারা পেয়েছিলেন। এই কর্মকাণ্ড ঘটানোর পেছনে সন্ত্রাসী ও অন্যান্য অপরাধীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা