পারফরম্যান্সের মূল্যায়ন পাওয়া রাজ ভাইকে দায়িত্ব নিতে হবে

এনামুল হক জুনিয়র: চট্রগ্রাম টেস্টের আগে বাংলাদেশ দলে একটা চমকই বলা যায় আব্দুর রাজ্জাক রাজ ভাই। তবে তার ডাক পাওয়াটা অন্য সবার মতো আমাকে বিস্মিত করে নি। ঘরোয়া ক্রিকেটে মৌসুমের পর মৌসুম পারফরমের মূল্যায়ন পেয়েছেন তিনি। বাংলাদেশ দলের নির্বাচকদের অবশ্যেই এই ক্ষেত্রে ভূমিকা আছে। তারা অনেক বড় একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর এটি করেছেন দলের অন্তিম সময়ে। যখন চট্রগ্রাম টেস্টে আমাদের একজন বিশেষজ্ঞ স্পিনারের প্রয়োজন পড়েছে। তার এই ফেরাটা নি:সন্দেহের অন্যদেরকে আশার আলো দিয়েছে।

জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়াম বরাবরই স্পিন বান্ধব। তাই এক্ষেত্রে অন্যদিকে ধাবিত না হয়ে স্পিনেই ভরসা করা উচিত। আর আমাদের সেই সামর্থ্য আছে। দলে মোট ছয়জন স্পিনার আছে। তারমধ্যে খুব সম্ভবত তিনজন মূল স্পিনারকে একাদশে নেওয়া হবে। সাকিব থাকলে অবশ্যে আলাদা একজনকে নিতে হতো না। সাকিব না থাকায় আমাদের ক্ষতি হয়েছে। সে থাকলে আমরা একজন ব্যাটসম্যান ও বোলার কম নিয়ে খেললেও অসুবিধা হতো না। তবে এই না থাকা নিয়ে আফসোস করে লাভ নেই। যা আছে আমাদের সামর্থ্য তাই নিয়েই খেলতে হবে।

এখানে আরেকটা কথা বলে রাখা উচিত এই টেস্টে টস একটি বড় ফ্যাক্টর হিসেবে দেখা দিবে। যে দলই টস জিতবে তারাই ব্যাটিং নিবে। আমি মনে করি টস জিতে রিয়াদের দ্বিতীয়বার কোন চিন্তা না করা। সরাসরি ব্যাটিংয়ে নেমে পড়া। টেস্টের প্রথম দিনের প্রথম ইনিংস খুব গুরুত্বপূর্ণ। এই ইনিংসটাকে কাজে লাগাতে হবে।

টপ আর মিডল অর্ডার আমাদের ভরসা জোগাবে। তবে অবশ্যেই মুশফিক ও রিয়াদকে বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে। যেহেতু এখানে আমাদের সাকিব অনুপস্থিত রয়েছে। সাকিব না থাকায় আমরা পুরোদমে একজন অলরাউন্ডার পাচ্ছি না। তবে একেবারেই খালি হাতে মাঠে নামা হচ্ছে না। রিয়াদ আছে, ব্যাট ও বলে দুই জায়গাতেই সে তার সামর্থ্য প্রমাণ করতে পারার সুযোগ পাচ্ছে।

বোলিংয় রাজ ভাই অবশ্যেই নেতৃত্ব দিবেন বাংলাদেশ দলকে। এখনো একাদশ ঠিক না হলেও বলতে পারছি বাংলাদেশ দলের বোলিং বিভাগের দায়িত্ব তার উপরেই পড়বে। কারণ দলে সেভাবে বিশেষজ্ঞ কোন স্পিনার নেই। আর তাকে যেহেতু একেবারেই শেষ মূর্হতে ডাকা হয়েছে সেহেতু বলা যাচ্ছে তার প্রয়োজন দলে আছে। এক্ষেত্রে রাজ ভাইয়ের সাথে সঙ্গী হতে পারেন মিরাজ ও তাইজুল। মূলত তিন স্পিনার নিয়ে বাংলাদেশ দল খেললেও তাদেরকে সাহায্য করবেন অধিনায়ক রিয়াদ। রিয়াদের অফস্পিন বেশ কার্যকরী হবে জহুর আহমদ স্টেডিয়ামে। সব মিলিয়ে একটা দারুণ টেস্ট হতে যাচ্ছে। আর হ্যাঁ ভুলে গেলে চলবে না লঙ্কা দলে রঙ্গনা হেরাথ রয়েছে। তাকেও বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের সামলাতে হবে।

লেখক: বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার ও প্রথম টেস্ট জয়ের নায়ক।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/১০৪