ফখর লড়াই করলেন-রেকর্ডও করলেন, ‘ডাবল সেঞ্চুরি’র আক্ষেপ

স্পোর্টস ডেস্ক:: ব্যাট হাতে একাই লড়াই করেছেন। লড়াইয়ের চেয়েও যেনো বেশি কিছু। প্রোটিয়াদের দেওয়া পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে একা একা শুধু লড়াই করেননি, রেকর্ডও করেছেন অনেকগুলো। ওয়ানডেতে আরেকটি ‘ডাবল সেঞ্চুরি’ মিসের জন্য ৭ রানের আক্ষেপ নিয়ে যখন ফখর জামান ফিরেছেন, তার দল পাকিস্তানও দ্বিতীয় এক দিনের ম্যাচে হেরেছে ১৭ রানের ব্যবধানে।

স্বাগতিক সাউথ আফ্রিকা আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ৩৪১ রান তুলে। ৩৪২ রানের টার্গেটে খেলতে নামা পাকিস্তান থেমেছে ৯ উইকেটে ৩২৪ রানে। সফরকারীদের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ইনিংসের মালিক করেছেন মাত্র ৩১ রান। অধিনায়ক বাবর আজমের ব্যাট থেকে আসে এই রান। তৃতীয় সর্বোচ্চ স্কোরার আসিফ আলীর ব্যাট থেকে এসেছে ১৯ রান। ৩২৪ রানের মধ্যে ১৯৩ রানই করেছেন ফখর জামান।

১৫৫ বলে সাজানো নান্দনিক ইনিংসটিতে ১৮ টি চার ও ১০টি ছক্কা মেরেছেন বাবর। লং অফ থেকে এইডেন মার্করামের দারুণ এক থ্রোতে তিনি যখন প্যাভেলিয়ানে ফেরেন তার আগেই বেশ কয়েকটি রেকর্ড করে ফেলেন। পাকিস্তানের পক্ষে ওয়ানডেতে দলের এক ইনিংসে এতো বেশি রানের রেকর্ড নেই আর কারো। সাঈদ আনোয়ার ২৪ বছর আগে ভারতের বিপক্ষে ১৯৪ রান করে এতোদিন সবার উপরে ছিলেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে অন্য কোনো ব্যাটসম্যানের এক ইনিংসে এতো বড় রানের রেকর্ড নেই। প্রোটিয়াদের মাটিতে এক দিনের ক্রিকেটে এখন সর্বোচ্চ ইনিংসের মালিক ফখর জামান। নিজের এতো সব অর্জনের দিনে অবশ্য শেষ পর্যন্ত দলকে তিনি জেতাতে পারেননি।

সাউথ আফ্রিকার হয়ে এনরিচ ৩টি ও এনডিল ২টি করে উইকেট লাভ করেন।

টস হেরে ব্যাট করতে নামা প্রোটিয়ারা অধিনায়ক অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা ও কুইন্টন ডি ককদের ব্যাটে ৬ উইকেটে ৩৪১ রানের বিশাল লক্ষ্য দাঁড় করায়। ৮ রানের জন্য সেঞ্চুরি বঞ্চিত হন টেম্বা বাভুমা। ইনিংস সর্বোচ্চ ৯২ রানের ইনিংসে তিনি ১০২ বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন নয়টি। ৮০ রান করা ডি কক ৮৬ বলের ইনিংসে দশটি চার ও একটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন। প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ার রাশি ফন ডার ডুসেন ৬০ রানে ফিরেছেন সাজঘরে। ৩৭ বলের ঝড়ো ইনিংসে ছয়টি চার ও চারটি ছয় হাঁকিয়েছেন তিনি। ডেভিড মিলার অপরাজিত থেকেছেন ২৭ বলে তিন চার ও সমান সংখ্যক ছয়ে ৫০ রান করে।

পাকিস্তানের হয়ে হারিস রউফ সর্বাধিক ৩টি উইকেট লাভ করেন।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০