বল হাতে বিশ্বরেকর্ড গড়লেন সাকিব আল হাসান

স্পোর্টস ডেস্কঃ অবশেষে বিশ্বরেকর্ডের কাজটা সম্পন্ন করলেন সাকিব আল হাসান। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের এখন সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি টাইগারদের পোস্টারবয়। লাসিথ মালিঙ্গাকে পেছনে ফেলে এককভাবে এখন শীর্ষস্থানটা নিজের নামে করে নিয়েছেন এই তারকা।

বিশ্বকাপে মিশনে শুরুতে আজ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ দল। এই ম্যাচের আগে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি হওয়ার দৌড়ে ছিলেন সাকিব (১০৬ উইকেট)। লাসিথ মালিঙ্গাকে পেছনে ফেলে এককভাবে তালিকার শীর্ষে নাম লেখাতে সাকিবের প্রয়োজন ছিল মাত্র ২টি উইকেট। আর ১টি উইকেট নিলে যৌথভাবে মালিঙ্গার সাথে বসতেন শীর্ষস্থানে।

ওমানের মাসকাটে অবস্থিত আল আমেরাত স্টেডিয়ামে ম্যাচের স্কটল্যান্ড ইনিংসের ১১তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রিচি বেরিংটনকে লং অনে আফিফ হোসেনের দারুণ এক ক্যাচে পরিণত করে মালিঙ্গার নামের পাশে নিজের নাম বসান সাকিব। একই ওভারের চতুর্থ বলেই সদ্য উইকেটে আসা মাইকেল লিককে লং অফে লিটন দাসের ক্যাচে পরিণত করেন বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার।

আর এতেই মালিঙ্গাকে ছাড়িয়ে এককভাবে নিজেকে সবার ওপরে নিয়ে যান। বর্তমানে ১০৮ উইকেট নিয়ে সবার শীর্ষে আছেন সাকিব। লঙ্কান কিংবদন্তী মালিঙ্গা ১০৭ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছেন। সব ধরনের ক্রিকেটকে বিদায় বলায় এর থেকে বেশি উইকেট সংখ্যা বাড়ানোর সম্ভাবনা নেই আর। এদিকে সবকিছু ঠিক থাকলে সাকিব আজ থেকে শুরু হওয়া বিশ্বকাপসহ আরও কয়েক বছর খেলবেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে।

মালিঙ্গা ও সাকিব ব্যতীত আর কোনো ক্রিকেটারেরই ১০০ উইকেট নেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। তালিকার তৃতীয় স্থানে থাকা নিউজিল্যান্ডের টিম সাউদির রয়েছে ৯৯ উইকেট। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলে দেওয়া পাকিস্তান কিংবদন্তী শহীদ আফ্রিদি ৯৮ উইকেট নিয়ে আছেন চার নম্বরে। আর ৯৫ উইকেট নিয়ে পাঁচে অবস্থান করছেন আফগানিস্তানে তারকা লেগ স্পিনার রশিদ খান।

অবশ্য সাকিবের এই রেকর্ড আগেই হতে পারতো ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ড সিরিজে। কিন্তু পাঁচ ম্যাচের টি-২০ সিরিজে প্রথম দুই ম্যাচে জোড়া উইকেট করে পেলেও, তৃতীয় এবং চতুর্থ টি-টোয়েন্টিতে উইকেট পাননি। আর শেষ টি-টোয়েন্টিতে খেলেননি। যার ফলে ঘরের মাঠে নতুন উচ্চতায় যাওয়া হয়নি। তবে টি-২০ ক্রিকেটের বিশ্বমঞ্চে নিজেকে আরও একবার বড় করে চিনিয়েছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা