বাংলাদেশ মানেই বাঁহাতি স্পিনঃ পিটারসেন

স্পোর্টস ডেস্কঃ খেলোয়াড়ি জীবনে বাঁহাতি স্পিনের বিপক্ষে সবসময়ই ভয় পেয়ে এসেছেন কেভিন পিটারসেন। ইংল্যান্ডের সাবেক এই অধিনায়ক যখন মুখোমুখি হতেন বাংলাদেশের বিপক্ষে, তখন ভয়ে কুঁকড়ে যেতেন। টাইগারদের বাঁহাতি স্পিনের বহর যে তাঁকে কুঁকড়ে যেতে বাধ্য করতো।

এর কারণও আছে বৈকি। তখন বাংলাদেশ দলে ছিল এক ঝাঁক তারকা বাঁহাতি স্পিনার। একাদশে মোহাম্মদ রফিক, আব্দুর রাজ্জাক, সাকিব আল হাসানকে নিয়ে তৈরি হতো দলের মূল বোলিং লাইনআপ। সাকিব আসার আগে যেখানে ছিলেন আরেক বাঁহাতি মানজারুল ইসলাম রানা। টাইগারদের বল হাতে দলের মূল শক্তিই ছিল এই বাঁহাতি স্পিন।

এই বাঁহাতি স্পিনের কারণে বাংলাদেশ সফরে আসা পছন্দ ছিল না পিটারসেনের। ক্রিকবাজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পিটারসেন জানিয়েছেন বাঁহাতি স্পিন নিয়ে এতটাই ভয় পেতেন যে বিমানে উঠা থেকে নামা সব জায়গায়ই তিনি বাঁহাতি স্পিনিং দেখতে পেতেন। সবাই যেন তাঁর সামনে বাঁহাতি স্পিন করছে।

পিটারসেন বলেন, ‘বাংলাদেশ! সত্যিই সেখানে সফর খুবই কঠিন। বিশেষ করে আমি যে সময়ে খেলছিলাম। বাঁহাতি স্পিন আমি খেলতে পারি না, আর বাংলাদেশের প্রতিটা বোলারই যেন বাঁহাতি স্পিনার। বিমানে উঠার পর মনে হতো বিমানবালারাও যেন বাঁহাতি স্পিন করছে । রানওয়েতে মানুষ হাঁটছে, তারাও যেন বাঁহাতি স্পিন করছে। বাংলাদেশ মানেই আমার কাছে বাঁহাতি স্পিন।’

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট এবং ওয়ানডেতে ১০ বার আউট হয়েছেন পিটারসেন। দক্ষিণ আফ্রিকা বংশোদ্ভোত এই সাবেক ইংলিশ তারকা প্রতিবারই কোনো না কোনো বাঁহাতি স্পিনারের শিকার হয়েছিলেন। এর মধ্যে সর্বাধিক পাঁচ বার সাকিব আল হাসানের বলে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেছেন।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা