বার্সার ক্ষতি দুই হাজার কোটি টাকার বেশি

স্পোর্টস ডেস্ক:: করোনাভাইরাসের কারণে ফুটবল বন্ধ। সব ধরণের খেলাধুলাও বন্ধ রয়েছে। জার্মান কর্তৃপক্ষ কেবল বুন্দেসলিগা শুরু করেছে শনিবার থেকে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে দর্শক শূন্য স্টেডিয়ামে জার্মানে ফুটবল ফিরলেও অন্যান্য ফুটবল টুর্ণামেন্টগুলো বন্ধ রয়েছে।

ধনাঢ্য ক্লাব বার্সেলোনা তাই ২ হাজার কোটি টাকারও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। জুনে হিসেব শেষ করতে বার্সা একটি পরিসংখ্যান করেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে ক্লাবটির কোষাগার থেকে ক্ষতির খাতায় চলে গেছে প্রায় ২২০ মিলিয়ন ইউরো। বাংলাদেশী মুদ্রায় ২ হাজার ২২ কোটি টাকার মতো।

করোনাভাইরাস চলকালীন বার্সা জুন ক্লোজিং করতে গিয়ে এমন ক্ষতির হিসেব পাচ্ছে। বার্সেলোনার চেয়ারম্যান হোসে মারিয়া বার্তেম্যু এমন তথ্য জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে।

আর্থিক বছরের হিসেব জুনে ক্লোজ করবে ক্লাবটি। সেই ক্লোজের হিসেব মেলাতে গিয়েই বার্সা জানিয়ে দিয়েছে, অর্থ বছরে তাদের ক্ষতির পরিমান ২২০ মিলিয়ন ইউরো। এরপরই শুরু হবে নতুন বছর। করোনাভাইরাস অব্যাহত থাকলে তা আগামি বছরে ক্লাবটির কোষাগারে আরো বড় আঘাত করতে পারে।

মাত্র দুই মাসের লকডাউনে ২ হাজার কোটি টাকার বেশি ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে মেসিদের। আগামিতে লকডাউণ অব্যাহত থাকলে সেই পরিমান কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় তা নিয়ে চিন্তিত ক্লাবটির পরিচালকরা। ক্লাবটি জানিয়েছে, ন্যু ক্যাম্পের টিকিট বিক্রি না হওয়া ক্ষতি হয়েছে ১৫৪ মিলিয়ন ইউরো। একাডেমির কার্যক্রম, অফিসিয়াল স্টোরস এবং মিউজিয়ামের টিকিট বিক্রি না হওয়াতে ক্ষতি হয়েছে বাদবাকী টাকা।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০