বিপিএলের আগে ডিপিএল আয়োজন করে প্রমাণ করতে হবে- বিসিবি

স্পোর্টস ডেস্ক:: বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেট ডিসম্বরে আয়োজন হয়। আগামি ডিসিম্বরে যে বিপিএল আয়োজন হবে না সেটা নিশ্চিত। বিসিবি বিপিএল আয়োজনের জন্য উইন্ডো খোঁজছে। আগামি বছরের মার্চ-এপ্রিলে বিপিএল আয়োজনের চেষ্টা করছে বোর্ড। কিন্তুু তার আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট খেলার জন্য উপযুক্ত সেটা প্রমাণ করতে হবে বোর্ডকে।

বিপিএল গর্ভর্নি কাউন্সিলের সদস্য সচিব ও বিসিবি পরিচালক ঈসমাইল হায়দার মল্লিক জানিয়েছেন, বিপিএল শুরুর আগে বিসিবিকে প্রমাণ করতে হবে এখানে ক্রিকেট খেলা যাবে। আর সেটা প্রমাণের জন্য ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) আয়োজন করতে হবে বোর্ডকে।

করোনাভাইরাসের কারণে ক্রিকেট বিশ্ব বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বাংলাদেশ বাদ যায়নি। করোনার ধাক্কা কাটিয়ে ক্রিকেট ফেরানোর চেষ্টা করছে বিসিবি। তবে এই মুহুর্তে বিপিএল আয়োজনের সক্ষমতা নেই ক্রিকেট বোর্ডের। বোর্ডের কর্মকর্তারা আপাতত একটি টুর্ণামেন্ট আয়োজন করে ক্রিকেট ফেরাতে চাইছেন। এরপর ডিপিএল আয়োজন করে তবেই বিপিএলের পথে এগুতে চাচ্ছেন তারা।

বোর্ড পরিচালক ঈসমাইল হায়দার মল্লিক ক্রিকবাজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, বিপিএল আয়োজনের জন্য তারা উইন্ডো খোঁজছেন। তার আগে ডিপিএল আয়োজন করে বিসিবি প্রমাণ করতে চায় এখানে ক্রিকেট খেলা যাবে। তিনি বলেন, ‘বিপিএলে অনেক ভীনদেশি ক্রিকেটাররা যুক্ত থাকে, আমাদের অন্যান্য বিদেশিদের রাখার ব্যবস্থাও করতে হয় যেমন- ম্যাচ অফিশিয়াল ও ব্রডকাস্টিং ইউনিটের সদস্যদের।’

বিপিএলের আগে ডিপিএল দিয়ে প্রমাণের বিষয় রয়েছে জানিয়ে ঈসমাইল হায়দার মল্লিক বলেন, ‘আমরা বিদেশি বড় তারকাদের না আনতে পারলে টুর্নামেন্ট আকর্ষণ হারায়। আর তেমনটা করার জন্য আমাদেরকে তাদের এখানে এসে খেলার জন্য যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী করে তুলতে হবে। সুতরাং আমাদের এর মাঝে ডিপিএল খেলে প্রমাণ করতে হবে যে এখানে ক্রিকেট খেলা যায়। আমরা মার্চে বিপিএলের জন্য একটা উইন্ডো খুঁজতে পারি। কিন্তু সেটাও নির্ভর করবে বিশ্ব করোনাতে কিরকম প্রভাবিত থাকে তার ওপর। কারণ সব স্টেকহোল্ডারদেরই প্রতিযোগিতার জন্য স্বাস্থ্য বিষয়ক নির্দেশিকা মেনে কাজ করতে হবে।’

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০