বিশ্বকাপে খেলার আকাঙ্ক্ষা বাড়াতেই ট্রফি এনেছি- সালাউদ্দিন

স্পোর্টস ডেস্ক:: বাংলাদেশ কাতার বিশ্বকাপে খেলবে এমন স্বপ্ন দেখে ছিলেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে এ অঞ্চলের বাঁধাই পেরুতে পারেনি বাংলাদেশ। তবুও বাংলাদেশ সফরে এসেছে বিশ্বকাপের ট্রফি।

প্রায় দুই শতাধিক দেশের মধ্যে মাত্র ৫১টি দেশ ভ্রমণ করবে বিশ্বকাপ ট্রফি। বাংলাদেশে ট্রফি নিয়ে আসতে অনেকটা যুদ্ধ করতে হয়েছে ফুটবল ফেডারেশনকে। বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন এটা করেছেন ফুটবলারদের মধ্যে বিশ্বকাপে খেলার আকাঙ্ক্ষা বাড়াতেই।

ট্রফি গ্রহণ শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে বাফুফের শীর্ষ এই কর্তা জানিয়েছেন, ফুটবলারদের, সমর্থকদের যেনো আকাঙ্ক্ষা বাড়ে বিশ্বকাপে খেলার, সেজন্যই ট্রফি আনা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘ফুটবলার-কোচদের এই বিশ্বকাপের প্রতি যেন আকর্ষন আসে, অনুপ্রেরণা পায়; সেই লক্ষ্যেই আমরা অনেক চেষ্টা করে দেশে বিশ্বকাপ এনেছি। দর্শকদের জন্যও বিশ্বকাপ ট্রফি দেখার সুযোগ থাকছে। ট্রফি দেখে যেন সবার আকাঙ্ক্ষা আরো বাড়ে এজন্যই ট্রফি দেশে আনা।’

ট্রফিকে বাংলাদেশে আনতে অনেক লড়াই করতে হয়েছে জানিয়ে কাজী সালাউদ্দিন বলেন, ‘ফুটবলার এবং ইয়াং জেনারেশনের মধ্যে ইমপ্যাক্ট ফেলার জন্যই বিশ্বকাপ এদেশে আনা। বিশ্বের ২১১টা দেশের মধ্যে ৫১টি দেশে বিশ্বকাপের এই ট্রফি যাবে। সেখানে অনেক যুদ্ধ করেই আমাদের ইয়াং জেনারেশনের মধ্যে খেলার আগ্রহ বাড়ানোর জন্য আমরা এই চেষ্টা করেছি।’

প্রথমদিন বুধবার সকালে ঢাকায় পৌঁছে হোটেলে থাকবে ট্রফিটি, তবে কারো জন্য উন্মুক্ত থাকবে না। বিকেল ৪টায় বিশ্বকাপ ট্রফি যাবে গণভবনে রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদের দফতরে। সেখান থেকে সন্ধ্যা ৭টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যাবে ট্রফিটি। রাতে ফিরবে হোটেলে।

দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত বিশ্বকাপ ট্রফি হোটেলে উন্মুক্ত থাকবে ভিআইপিদের জন্য। বাফুফে সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও গণমাধ্যম কর্মীরা ছবি তুলার সুযোগ পাবেন বিশ্ব ট্রফির সাথে। তবে সাধারণ দর্শকেরা ছবি তুলার খুব একটা সুযোগ পাবেন না। কোকোলার ক্যাম্পেইন থেকে যারা টিকিট সংগ্রহ করেছেন তাই রেডিসন ব্লুতে গিয়ে ট্রফির সাথে ছবি তুলতে পারবেন। সেখান থেকে বিকেল ৫টায় যাবে আর্মি স্টেডিয়ামে কোকোলার কনসার্টে।

বৃহস্পতিবার রাতে কনসার্ট শেষে ট্রফি ফিরবে হোটেলে। শুক্রবার সারাদিনও থাকবে ঢাকায়। তবে তৃতীয় শুক্রবার কোনো কর্মসূচি নেই ট্রফির। সারা দিন ঢাকায় থেকেই পরবর্তী গন্তব্য পূর্ব তিমুরে।

বিশ্ব ভ্রমণে বেরিয়েছে ফিফা কাতার বিশ্বকাপের ট্রফি। ৫১টি দেশ ঘুরে বিশ্বকাপের ট্রফি যাবে আয়োজক দেশ কাতারে। সেখান থেকেই বিশ্বসেরা দলের হাতে আগামি ১৮ ডিসেম্বর রাতে উঠবে ট্রফিটি। বিশ্বকাপের আগামি আয়োজক কাতার।

বিশ্ব ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই আয়োজনের প্রস্তুুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে কাতারের। ইতিমধ্যে গড়ে তুল হয়েছে একাধিক দৃষ্টিনন্দন স্টেডিয়াম। বিশ্ব ফুটবলকে স্বাগত জানানোর শেষ প্রস্তুুতি নিচ্ছে তেল-খনিজ সম্পদে ভরপুর দেশটি।

বাছাই পর্বের বাঁধা বেরিয়ে বিশ্বকাপ লড়াইয়ে অংশ নেবে দুই শতাধিক ফুটবল খেলুড়ে দেশের মধ্যে সেরা ৩২টি দল। তবে এবারের বিশ্বকাপেও দেখা যাবে না নান্দনিক ফুটবল খেলা ইতালিকে। বাছাই পর্বের বাঁধা টপকাতে পারেনি দলটি। আগামি ২১ নভেম্বর পর্দা উঠবে জমজমাট ফুটবল লড়াইয়ের।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০