বৃটেনের সঙ্গে প্রতারণা, বিপদের মুখে সফরকারী পাকিস্তান!

স্পোর্টস ডেস্ক:: ইংল্যান্ড সফর করছে পাকিস্তান দল। দুই দলের টেস্ট সিরিজ শুরু হবে দিন দু’এক পরেই। তার আগে পাকিস্তান ক্রিকেট দলকে বড় শাস্তির মুখে পড়তে হচ্ছে। ২০ বছর আগের প্রতারণায় ঘটনায় সরব হয়েছে বৃটিশ কোম্পানী। জানিয়েছে, পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সব সম্পত্তি তারা বাজেয়াপ্ত করবে।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, বৃটেনের কোম্পানী ব্রডশিট এলএলসি ৩৩ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থ পায় পাকিস্তানের কাছে। দেশটির সরকার এবং ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরোর (এনএবি)’র কাছে এই বিপুল পরিমাণ বকেয়া কোম্পানীটির।

প্রায় বিশ বছর আগে অর্থাৎ ২০০০ সালে নওয়াজ শরিফের পরিবারসহ পাকিস্তানের বেশ কিছু সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠে। ব্রডশিট এলএলসিকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিলো। কিন্তুু সেই কাজের পারিশ্রমিক এখনো পায়নি প্রতিষ্ঠান।

পাকিস্তান দলটি এখন ইংল্যান্ড সফরে আছে। এমন সময় কোম্পানীটি তাদের বকেয়া পাওনা পরিশোধের দাবি জানিয়েছে। না হলে তারা আইন অনুযায়ী পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সম্পত্তি, সেখানে পাকিস্তান হাই কমিশনের স্থাপনা ও নিউ ইয়র্কে পাকিস্তানীদের একটি হোটেল বিক্রি করে দেবে তারা। এই মর্মে ব্রিটেনের সেই কোম্পানিটি পাকিস্তান কাউন্সেল ‘অ্যালেন অ্যান্ড ওভারি’কে একটি চিঠি দেয়। কিন্তুু এই চিঠিরও কোনো জবাব তারা পায়নি।

পাওনা আদায়ের জন্য পাকিস্তান ও এনএবি’র বিরুদ্ধে মামলা করে কোম্পানীটি। সেই মামলার রায়ও পায় তারা। মামলার রায়ে পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের সমস্ত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেয় আদালত। তবে সে সময় এলএলসি কোনো ব্যবস্থা না নিলেও এবার পাকিস্তান দলের সফরকালে তারা ব্যবস্থা নিতে তৎপর হয়ে উঠেছে।

ব্রডশিট এলএলসি জানিয়েছে, ‘পাকিস্তান দল এখন ব্রিটেনে। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্টের প্রস্তুতি নিচ্ছে। বকেয়া না মেটানোর দায়ে দলের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হতে পারে। শুধু তাই নয়, লন্ডনে পাক দূতাবাস বিল্ডিং এবং হাই কমিশনারের বাড়িও বাজেয়াপ্ত করার কথা ভাবা হচ্ছে। নিউইয়র্কে রুজভেল্ট হোটেলটিও রয়েছে কোম্পানির নিশানায়।’

এমন ঘটনায় সফরকারী পাকিস্তান দল বেশ বিপাকে পড়েছে। সাদা পোশাকে মাঠের লড়াইয়ে নামার আগে কোয়ারেন্টিনে থাকা পাকিস্তান দলকে বেকায়দায় ফেলেছে বৃটেনের কোম্পানীটি।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০