ভারত-পাকিস্তান সিরিজ আয়োজনের ‘সাধ্য নেই’ আইসিসির

স্পোর্টস ডেস্কঃ নানা সমস্যা কাটিয়ে সেই ২০১৩ সালের দ্বীপাক্ষিক সিরিজ খেলেছিল ভারত ও পাকিস্তান। ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে সেবার ভারতে গিয়েছিল পাকিস্তান। তবে এরপর ৮ বছর ধরে নেই কোনো সিরিজ দুই দলের। বৈশ্বিক আসর কিংবা এশিয়া কাপের মতো আঞ্চলিক আসর ছাড়া ভারত-পাকিস্তান দ্বৈরথ দেখার কোনো সম্ভাবনাই নেই এখন।

দুই দেশের রাজনৈতিক বিদ্বেষই যেখানে মূল কারণ। যার জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) ও বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) নিজেদের মধ্যে সমঝোতা করে আয়োজন করতে পারছে না সিরিজের। অথচ ক্রিকেটে বিশ্বের সবচেয়ে আকাঙ্খিত দ্বৈরথ হলো ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ।

কিছুদিন আগে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে দুই দলের দেখায় জিতেছে পাকিস্তান। এই ম্যাচ গড়েছে রেকর্ডও। সর্বোচ্চ সংখ্যক টেলিভিশনে উপভোগ করেছে দুই দলের লড়াই। কিন্তু এখানেই শেষ। এরপর আর কোনো বৈশ্বিক আসর কিংবা এশিয়া কাপ ছাড়া দেখা যাবে না দুই দলকে একসাথে।

এই ব্যাপারে কিছু করার নেই খোদ ইন্ট্যারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলেরও (আইসিসি)। ক্রিকেট বিশ্বের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহি জিওফ অ্যালার্ডাইস জানিয়েছেন, দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের আন্তরিকতা না থাকলেও আইসিসির এই সিরিজ আয়োজন করার সাধ্য নেই। সিরিজ আয়োজন করতে হলে দুই দেশকে নিজেদের মধ্যে আগে সমঝোতা করতে হবে। সমঝোতা না থাকার কারণে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেও কোনো ম্যাচ রাখা হয়নি।

এই প্রসঙ্গে অ্যালার্ডাইস বলেন, ‘যেকোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজে দেশের বোর্ড রাজি থাকলেই আয়োজন সম্ভব হয়। যদি বিসিসিআই ও পিসিবি রাজি না হয়, তাহলে আইসিসিরও সাধ্য নেই সিরিজ আয়োজনের। দ্বিপাক্ষিক সিরিজ ছাড়াও ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ সবসময়ই উপভোগ্য। তবে দুই দেশের মধ্যে যে সম্পর্ক, সেটাতে আশার আলো নেই।’

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ প্রসঙ্গে অ্যালার্ডাইসের ভাষ্য, ‘ভারত-পাকিস্তান সিরিজ বাদ দেওয়া হয়েছে। তাই যদি ফাইনালে ওঠে, তাহলে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে আয়োজিত হবে খেলা।’

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা