মঈন আলীকে ‘জঙ্গি’ বলে আক্রমণ তসলিমার, ক্ষোভে ফুঁসছেন আর্চাররা

স্পোর্টস ডেস্কঃ বেফাঁস মন্তব্যের কারণে প্রায়সময়ই আলোচনায় আসেন তসলিমা নাসরিন। এবার আরও একবার বেফাঁস মন্তব্য করে বসেছেন বাংলাদেশ থেকে নির্বাসিত এই ব্যক্তি। তার নিশানায় এবার ইংল্যান্ডের তারকা অলরাউন্ডার মঈন আলী। ধর্মপ্রানে বিশ্বাসী এই তারকা ক্রিকেটার আইপিএল খেলতে এখন চেন্নাই সুপার কিংস দলের সাথে আছেন।

সম্প্রতি চেন্নাই ফ্র্যাঞ্চাইজি মঈন আলীর ধর্মবিশ্বাসকে সম্মান জানিয়ে তার জার্সি থেকে মদ কোম্পানির লোগো সরিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যা কিনা বিশ্বব্যাপিই সমাদৃত হয়েছে। তবে বিষয়কে কেন্দ্র করে বেফাঁস মন্তব্য করেছেন আলোচিত-সমালোচিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন।

এক টুইট বার্তায় তসলিমা লেখেন, যদি ক্রিকেটার না হতেন মঈন আলী তাহলে সিরিয়ার সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসের সাথে যুক্ত হতেন। তার এমন টুইটের পরই শুরু হয় তীব্র সমালোচনা। সাধারণ মানুষ এক হাত নেন তসলিমাকে। এমনকি বাদ যাননি ইংলিশ ক্রিকেটাররাও।

মঈনের সমর্থনে জোর্ফ্রা আর্চার, সাকিব মাহমুদ, স্যাম বিলিংস, বেন ডাকেটরা টুইট বার্তায় রীতিমতো ধুইয়ে দিচ্ছেন। রিপোর্ট করতে বলছেন তার টুইট একাউন্টকে। আর্চার লেখেন, ‘তুমি কি ঠিক আছো? আমার মনে হয় না তুমি ঠিক আছো।’ আরেক পেসার সাকিব মাহমুদ লেখেন, ‘বিশ্বাস করতে পারছি না। জগন্য টুইট। ঘৃণ্য ব্যক্তি।’

স্যাম বিলিংস লিখেছেন, ‘অনুগ্রহ করে আপনারা সবাই তসলিমার একাউন্টে রিপোর্ট করুন। জঘন্য!’ বেন ডাকেট আলাদা টুইটে লিখেন, ‘টুইটারের সমস্যাটা হলো এটিই। মানুষ এরকম যা তা বলে বেড়াতে পারে। পরিবর্তন দরকার। সবাই এই একাউন্টে রিপোর্ট করুন।’

পরবর্তীতে এই টুইট বার্তাটি মুছে ফেলা হয়েছে। তবে আরও একটি টুইট করেছেন তসলিমা। সেখানে বিষয়টিকে রসিকতা বলে লিখেছেন, ‘নিন্দুকরা ভালো করেই জানে যে মঈনকে নিয়ে টুইটটা মজা করে দিয়েছি। কিন্তু তারা এটাকে আমাকে অপমান করার মত ইস্যু বানিয়ে ফেলেছে কারণ, আমি ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলি এবং ইসলামিক ধর্মান্ধতার বিরোধিতা করি। মানবসমাজের অন্যতম বড় ট্র্যাজেডি হল নারীপন্থী বামপন্থীরাও নারীবিরোধী ইসলামিস্টদের সমর্থন করেন।’

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা