মাহমুদউল্লাহর অলরাউন্ডিং নৈপুণ্য ছাপিয়ে ইমরুলের ব্যাটে জিতল ইস্ট জোন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ জয় দিয়ে এবারের বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) ওয়ানডে ফরম্যাটের টুর্নামেন্ট শেষ করেছে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন। ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপ বা স্বাধীনতা কাপের নামের এই টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে বিসিবি নর্থ জোনকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে তামিম ইকবাল-ইমরুল কায়েসরা। ৭৩ বল হাতে রেখে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ইস্ট জোন।

২১৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরু পায় ইস্ট জোন। প্রথম ২০ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে দলটি সংগ্রহ করে ১০৪ রান। ১৭ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙে প্রিতম কুমারের বিদায়ে। প্রিতম ডাক মেরে ফিরে যান শফিউলের বলে। এরপর ইমরুল কায়েসের সাথে তামিম জুটি গড়েন ৫৩ রানের। দলটির দ্বিতীয় ব্যাটার হিসেবে ৭০ রানের মাথায় সাজঘরে ফিরে যান ওপেনার তামিম ইকবাল।

তবে যাবার আগে খেলে গেছেন ৩৫ রানের এক ইনিংস। বেশ উড়ন্ত শুরু এনে দিয়েছিলেন দলকে। গ্রিন গ্যালারির স্টেডিয়ামের পাশে থাকা ছোট টিলার ওপর দাঁড়িয়ে গুটি কয়েক খুদে দর্শকের চিৎকারের সাথে তামিমের ব্যাটিং, বেশ মাতিয়ে তুলেছিল সিলেটের নয়নাভিরাম মাঠের আবহকে। তবে তামিমকে ফিফটি পূরণ করতে দেননি নর্থ জোনের সবচেয়ে বড় তারকা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

৩৮ বলে ৩ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় খেলা বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়কের ইনিংসের লাগাম টেনে ধরেন তিনি। টাইগারদের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক নিজের অফ-স্পিন ফাঁদে বোল্ডআউট করেন তামিমকে। আর এতেই আশাহত হয়ে বাঁহাতি ব্যাটার পথ ধরেন ড্রেসিং রুমের। এরপর ইমরুল কায়েস ও আফিফ হোসেন ধ্রুব তৃতীয় উইকেটে ৫০ রানের একটি জুটি দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে দেন। ৪৭ বলে ১ বাউন্ডারিতে ২৬ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন আফিফ।

পরবর্তীতে ৫৫ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের ভিত গড়ে দেয় অধিনায়ক ইমরুল ও শাহদাত হোসেন দিপুর জুটি। একটা সময় ৩ বলের ব্যবধানে ইমরুল ও দিপু দু’জনই। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে দিপু খেলেন ২৫ বলে ২ বাউন্ডারিতে ২৬ রানের ইনিংস। আর ইমরুল খেলেন দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭১ রানের ইনিংস। ৮১ বলে ৮ বাউন্ডারিত সাজানো ইমরুলের। এই টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় ফিফটি ইমরুলের। শেষ দিকে আলাউদ্দিন বাবুর ১৭ ও সোহরাওয়ার্দি শুভ’র ১৫ রানের ইনিংসে ভর করে ৪ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দলটি।

নর্থ জোনের হয়ে ৯.৫ ওভার বল করে ৫৬ রান খরচায় ৩ উইকেট শিকার করেন। এছাড়া শফিউল, শফিকুল ও সানজামুল ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ২১৬ রানে অলআউট হয়েছে বিসিবি নর্থ জোন। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম গ্রাউন্ড-২’এ আগে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই বিপাকে ছিল নর্থ জোন।  ইস্ট জোনের বোলারদের তোপের মুখে পড়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় দলটি। তবে উজ্জ্বল ছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মার্শাল আইয়ুব।

২৫ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে নর্থ। তবে মার্শাল ও মাহমুদউল্লাহ জুটি গড়ে এই ধাক্কা সামাল দেন। রিয়াদ ৭০ বলে ৫০ রান স্পর্শ করেন। রানআউট হয়ে ফেরার আগে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক করেন ৮৭ বলে ৬৬ রান। মার্শাল ৫৪ রানে বিদায় নেন। শামীম ৩০ বলে ১৯ রান করেন। ২৭ বলে ২০ রানে অপরাজিত থাকেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। বাকিদের ব্যর্থতায় নির্ধারিত ওভারের ১ বল বাকি থাকতেই অলআউট হয় নর্থ।

নাঈম হাসান বল হাতে নেন ৩ উইকেট। ২ উইকেট লাভ করেন তানভীর ইসলাম। এছাড়া রুবেল ও আলাউদ্দিন বাবু ১ উইকেট করে নেন।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/সা