মিরাজের সেঞ্চুরির দিনে এগিয়ে বাংলাদেশ

ছবিঃ বিসিবি।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে চলা বাংলাদেশ-উইন্ডিজের মধ্যকার প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনটা নিজেদের করে নিয়েছে স্বাগতিকরা। দিন শেষে ৩৫৫ রানের বিশাল ব্যবধানে এগিয়ে আছে টাইগাররা। উইন্ডিজের সংগ্রহ ২ উইকেটের বিনিময়ে ৭৫ রান। তবে টাইগার ক্রিকেটে স্বস্তিটা মেহেদী হাসান মিরাজের অভিষেক সেঞ্চুরি। টেস্ট ক্যারিয়ারে এই প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন তিনি।

আগের দিনের করা ৫ উইকেটে ২৪২ রান নিয়ে ব্যাট করতে নেমে সকালের শুরুতেই লিটন দাসের উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। দলের ইনিংসে মাত্র ৬ রান যোগ করতেই ওয়ারিক্যানের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান তিনি। এর আগে খেলে যান ৬৭ বলে ৩৮ রানের ইনিংস। সাকিবের সাথে তার জুটির সমাপ্তি হয়ে যায় ৫৫ রানেই।

পরবর্তীতে উইকেটে এসে সাবলীলভাবেই ব্যাট করতে থাকেন মেহেদী হাসান মিরাজ। সঙ্গ দিতে থাকেন সাকিব আল হাসানকে। লিটন ফিরে গেলেও, ঠিকই নিজের ফিফটি তুলে নেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। নিষেধাজ্ঞা থেকে প্রথম বারের মতো টেস্ট ক্রিকেটে ফিরে ক্যারিয়ারের ২৫তম ফিফটি হাঁকান এই তারকা। তবে দলীয় ৩১৫ আর ব্যক্তিগত ৬৮ রানে মিরাজের সাথে ৬৭ রানের জুটি ভেঙে প্যাভিলিয়নে ফেরেন সাকিব। অথচ সেসময় মধ্যাহ্ন বিরতির আর বাকি ছিল মাত্র ৫ ওভারের মতো।

সেশনের শেষটায় আর কোনো উইকেট হারাতে দেননি মিরাজ ও তাইজুল। বেশ ধৈর্যের সাথে রক্ষণাত্মক ব্যাটিং করা তাইজুল খেলেন ৭২ বলে ১৮ রানের ইনিংস। শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে উইকেটরক্ষক জসুয়া ডা সিলভার তালুবন্দী হয়ে সমাপ্তি ঘটে এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের দৃঢ়ময় ইনিংস।

তবে উইকেটের অপর প্রান্তে থাকা মেহেদী হাসান মিরাজ ঠিকই ততক্ষণে ফিফটি হাঁকিয়ে সেঞ্চুরির পথে পা বাড়ান। লোয়ার অর্ডারে নাঈম হাসানকে নিয়ে গড়ে তুলেন ১৭ রানের ছোট একটি জুটি। আউট হওয়ার আগে ৪৬ বল খেলা নাঈম ফেরেন ২৪ রান করে।

তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে মিরাজ শেষ পর্যন্ত দেখা পান, তার টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির। উইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ারিক্যানের বল লেগ সাইডে ঠেলে দিয়ে দুই রান নিয়ে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন এই অলরাউন্ডার। সেঞ্চুরি করতে ১৬০ খেলার সঙ্গে ১৩টি চার মেরেছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

সেঞ্চুরির পর অবশ্য ইনিংস বড় করতে পারেননি মিরাজ। মিড অনে ওপর দিয়ে ছক্কা মারতে গিয়ে ক্যাচ আউট হয়েছেন তিনি। তাঁর বিদায়ের সঙ্গে সঙ্গে অলআউট হয় বাংলাদেশ। মিরাজ আউট হন ১০৩ রানে আর বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে থামে ৪৩০ রানে। মোস্তাফিজ অপরাজিত থাকেন ১১ বলে ৩ রান করে।

ক্যারিবিয়ানদের হয়ে ওয়ারিক্যান ১৩৩ রান খরচায় ৪টি উইকেট লাভ করেন। এছাড়া কর্নওয়াল ২টি, রোচ ও গ্যাব্রিয়েল ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

বাংলাদেশের ৪৩০ রানের জবাবে ২ উইকেটের বিনিময়ে ৭৫ রান নিয়ে দিন শেষ করেছে উইন্ডিজ। ইনিংসের শুরুতেই মোস্তাফিজের জোড়া আঘাতে অস্বস্তিতে পড়ে সফরকারীরা। ওপেনার জন ক্যাম্পবেল (৩) ও টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান শিয়েনে মসেলেকে(২) এলবিডব্লিউর শিকার করে ড্রেসিং রুমের পথ ধরান ফিজ।

তবে ক্রেইগ ব্রাথওয়েট ও ক্রুমাহ বোনারের ব্যাটে স্বাচ্ছন্দ্যে দিন পার করে ক্যারিবিয়ানরা। হাফ-সেঞ্চুরি থেকে মাত্র এক রান দূরে থেকে ৮১ বলে ৪৯ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত আছেন অধিনায়ক ব্রাথওয়েট। ৫৮ বলে ১৭ রানে অপরাজিত আছেন বোনার।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/সা