মুগ্ধের মুগ্ধকর বোলিং, জয়ের পথে রংপুর

ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রথম ইনিংসে ছয় উইকেট নিয়ে খুলনা বিভাগের ব্যাটিং লাইনআপে ধস নামিয়েছিলেন মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ। এবার দ্বিতীয় ইনিংসেও একই ধারা বজায় রাখলেন। প্রথম ইনিংসের মতোই দ্বিতীয় ইনিংসেও নিয়েছেন ছয় উইকেট। ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে প্রতিপক্ষ দলকে নাকানি চুবানি খাইয়েছেন এই পেসার।

আগের দিনে করা নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ১ উইকেটে ৪ রান নিয়ে আজ আবার ব্যাট করতে নেমেছিল খুলনা বিভাগ। নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫৯ রান তুলতেই অলআউট হয়ে পড়ে দলটি। সর্বোচ্চ ১৬৬ বলে ১৪ চারের মারে ৮৯ রানের ধৈর্য্যশীল দারুণ এক ইনিংস খেলেন ওপেনার অমিত মজুমদার। মাটি কামড়ানো ব্যাটিংয়ে উইকেটে পড়েছিল ২৫৬ মিনিট। এছাড়া ৭০ বলে ৭ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কাতে দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬৪ রানের ইনিংস খেলেন জিয়াউর রহমান। দুই ব্যাটসম্যান ষষ্ঠ উইকেটে গড়ে তুলেছিলেন ১২৬ রানের জুটি।

খুলনার ইনিংস ধস নামান মুগ্ধ। একে একে ছয় ব্যাটসম্যানকে প্যাভিলিয়নে ফেরান তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে তার বোলিং ফিগার ২০ ওভারে ৩ মেইডেনসহ ৬৭ রান খরচায় ৬ উইকেট। সব মিলিয়ে ম্যাচে ১২ উইকেট শিকার করেছেন এই তরুণ তুর্কি। ক্যারিয়ারে প্রথম বারের মতো প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এক ম্যাচ দশ উইকেট শিকার করে ১৩১ রানে ১২ উইকেটে ক্যারিয়ার সেরা ফিগারের দেখা পেয়েছেন তিনি। মুগ্ধ ছাড়াও দ্বিতীয় ইনিংসে মাহমুদুল হাসান ২টি, সোহরাওয়ার্দী শুভ ও আরিফুল হক ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

ম্যাচের চতুর্থ ও শেষ এবং নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে রংপুরের সামনে লক্ষ্য দাঁড়িয়েছে মাত্র ১১৭ রানের। সেই লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষে রংপুরের স্কোর বিনা উইকেটে ১৬ রান। ১৪ রানে অপরাজিত আছেন জাহিদ জাভেদ ও ১ রানে অপরাজিত নবিন ইসলাম। রংপুরে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে শেষ দিনে স্বাগতিকদের জয়ের জন্য প্রয়োজন আর ১০১ রান। হাতে আছে পুরো ১০ উইকেট।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/সা