মেসিকে তুলে নেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করলেন পিএসজি কোচ

স্পোর্টস ডেস্কঃ পিএসজির মাঠে গেল রাতে প্রথম বারের মতো খেলতে নেমেছিলেন লিওনেল মেসি। নতুন ঘর পার্ক দে প্রিন্সেসে অলিম্পিক লিওর বিপক্ষে দারুণভাবে খেলে যাচ্ছিলেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। ভাগ্য সুপ্রসন্ন না থাকায় গোল বঞ্চিত হন তর্কের খাতিরে সর্বকালের সেরা এই ফুটবলার। ম্যাচটি নেইমার ও ইকার্দির গোলে ২-১ ব্যবধানে জিতে নেয় প্যারিসিয়ানরা।

কিন্তু সবকিছুকে ছাপিয়ে আলোচনা-সমালোচনায় মেসিকে ৭৬তম মিনিটেই কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনোর তুলে নেওয়া। স্বাভাবিক দৃষ্টিতে মেসি যে এই সিদ্ধান্ত খুশি ছিলেন না সেটি স্পষ্টতই বোঝা গিয়েছে। মাঠ থেকে নামার সময় হাত মেলান নি স্বদেশী কোচের সাথে। একইসাথে তাঁর জিজ্ঞাসাসূচক অবাক চাহনিও, মনের ভেতরে থাকা কথাগুলো বলে দেয় অকপটেই।

পচেত্তিনোর এমন সিদ্ধান্তে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। তবে ম্যাচ শেষে নিজের সিদ্ধান্তের ব্যাখ্যা দিয়েছে এই আর্জেন্টাইন কোচ। যা বেশ যুক্তিযুক্তই। এতে করে পিএসজি এবং মেসি ভক্তদের মনের ক্ষোভ অনেকটাই কমতে পারে। তিনি জানিয়েছেন, মেসি এবং দলের ভালোর জন্যই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এমনটা। আর মেসির সাথে কোনো সমস্যাও নেই তার। মূলত মাঠে কিছুটা চোট নিয়ে অস্বস্তি দেখা যায় মেসির মাঝে। যার জন্যই এমনটা করেছেন তিনি। যদিও মেসি ইশারা দিয়ে বুঝিয়েছিলেন খেলা চালিয়ে নিয়ে যেতে চান তিনি। তবে কোচ চাননি ঝুঁকি নিতে কোনো প্রকার।

ম্যাচে শেষে সংবাদ সম্মেলনে পচেত্তিনো বলেন, ‘আমরা সবাই জানি ৩৫ জনের স্কোয়াডে দারুণ সব ফুটবলার আছে। তবে ১১ জনই কেবল একসাথে খেলতে পারে। এর থেকে বেশি খেলানো সম্ভব নয়। মাঠের সিদ্ধান্তগুলো দল এবং প্রতিটি খেলোয়াড়ের ভালোর জন্যই নেওয়া হয়। সকল কোচের ভাবনাতেই এটি থাকে। কখনো এসব কাজে লাগে, কখনও বা লাগে না। কখনও ফুটবলারদের এসব পছন্দ হয়, কখনও হয় না। যার জন্য দিন শেষে আমরা এই কারণেই এখানে আছি।’

পচেত্তিনো আরও বলেন, ‘আমি তাঁকে (মেসি) জিজ্ঞেস করেছিলাম, সে কেমন বোধ করছে। বলল ঠিকই আছে সব। এটাই ছিল আমাদের কথোপকথন। মেসিকে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্তটা আমরা নিয়েছি যাতে ভবিষ্যতে সম্ভাব্য ইনজুরি ঝুঁকি কমে। সামনে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ রয়েছে, তাই তাঁকে আগলে রাখা প্রয়োজন। এই সিদ্ধান্তগুলো দলের ভালোর জন্যই নেওয়া হয়।’

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা