ম্যাক্সওয়েল তাণ্ডবের পর অ্যাগারের বিধ্বংসী বোলিংয়ে উড়ে গেল নিউজিল্যান্ড

স্পোর্টস ডেস্কঃ পাঁচ ম্যাচের সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়ার কাছে পাত্তাই পায়নি নিউজিল্যান্ড। ওয়েলিংটনে অনুষ্ঠিত ম্যাচে স্বাগতিকদের ব্যাটে-বলে বিধ্বস্ত করে ৬৪ রানের বড় জয় পেয়েছে অজিরা। ব্যাট হাতে তাণ্ডব চালিয়েছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। এছাড়া বল হাতে বিধ্বংসী ছিলেন এদিন অ্যাস্টন অ্যাগার। ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ম্যাচসেরার পুরষ্কারটাও তুলে নিয়েছেন তিনি। হারলেও প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে আছেন কিউইরা।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৬ রানের মাথায়ই ওপেনার ম্যাথু ওয়েডকে হারিয়ে ফেলে অস্ট্রেলিয়া। তবে দ্বিতীয় উইকেটে অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ ও জশ ফিলিপের ৫১ বলে ৮৩ রানের জুটি ম্যাচের মোড় পাল্টে দেয়। তিন বার জীবন পাওয়া ফিলিপ ২৭ বলে ১ ছয় ও ৩ চারে ৪৩ রান করে ফিরলে ভাঙে সেই জুটি।

তবে এরপরই উইকেটে আসা গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে সঙ্গে নিয়ে ঝড় তোলা শুরু করেন ফিঞ্চ। তাদের ৩৬ বলে ৬৪ রানের জুটি অজিদেরকে বিশালে সংগ্রহের দিকে নিয়ে যায়। ৪৪ বলে ৮ চার ও ২ ছক্কায় ৬৯ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ফিঞ্চ। তবে তাণ্ডব অব্যাহত রাখা ম্যাক্সওয়েল ১৮তম ওভারে শেষ বলে আউট হন।

এর আগে কিউই বোলারদের ওপর ঝড় বইয়ে দিয়ে ৩১ বলে ৮ বাউন্ডারি আর ৫ ছক্কায় ৭০ রানের ইনিংস খেলেন ম্যাক্সি। তবে প্রথমদিকে উইকেটে তেমন সুবিধা করতে পারছিলেন না তিনি। প্রথম ১৬ বলে করেছিলেন মাত্র ১৮ রান। কিন্তু পরের ১৫ বলে ৫২ রান তুলে নিয়েছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। শেষ দুই ওভারে স্টোয়নিস-মিচেল মার্শরা আহমরি কিছু না করতে পারায় পাহাড়সম সংগ্রহ দাঁড় করতে পারেনি অজিরা। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ২০৮ রানেই থামে সফরকারীদের ইনিংস।

বিশাল লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ করলেও, দলীয় একশ পার হবার পরই অ্যাস্টন অ্যাগারের তোপের মুখে পড়ে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং লাইনআপ। মুড়ি-মুড়কির মতো উইকেট হারাতে থাকে কেন উইলিয়ামসনের দল। যার কারণে ১৭ বল বাকি থাকতেই ১৪৪ রানে গুঁটিয়ে যায় ব্ল্যাকক্যাপসদের ইনিংস।

সর্বোচ্চ ২৮ বলে ৩ ছয় ও ২ চারে ৪৩ রানের ইনিংস খেলেন মার্টিন গাপটিল। ডেভিড কনওয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৮ রান করেন দলের হয়ে। অধিনায়ক উইলিয়ামসন এবং ওপেনার গাপটিলের তৃতীয় উইকেটে ৩২ রানের জুটিই দলের পক্ষে সর্বোচ্চ।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৩০ রানে একাই ৬ উইকেট নিয়ে ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ের দেখা পেয়েছেন অ্যাস্টন অ্যাগার। এছাড়া রিলি মেরেডিথ ২টি উইকেট লাভ করেছেন।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা