ম্যারাডোনার চিকিৎসা ছিল ত্রুটিপূর্ণ এবং যত্নহীন

স্পোর্টস ডেস্কঃ সবাইকে শোকে ভাসিয়ে গত ২৫ নভেম্বর না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন ফুটবল ঈশ্বর খ্যাত দিয়েগো ম্যারাডোনা। ৬০ বছর বয়সেই এই ফুটবল মহাতারকার প্রয়াণ নিয়ে তৈরি হয়েছিল নানা ধোঁয়াশা। প্রশ্ন ওঠে, চিকিৎসকদের অবহেলা নিয়ে। এরপরই শুরু হয় এই নিয়ে তদন্ত।

ম্যারাডোনার এই প্রয়াণ নিয়ে প্রায় মাস পাঁচেক পর সেই অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে বলে জানিয়েছেন তদন্ত কর্তারা। তদন্তের জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ড জানিয়েছে আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী তারকার চিকিৎসা ছিল ত্রুটিপূর্ণ এবং যত্নহীন। এবং সেই চিকিৎসা যথাযথও ছিল না বলে জানিয়েছে তদন্ত কমিটি।

ম্যারাডোনার চিরনিদ্রার দিন কয়েক আগেই মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ নিয়ে অস্ত্রোপচার করা হয়। এরপর চিকিৎসকরা তাঁকে পুনর্বাসন কেন্দ্রে পাঠিয়েছিলেন। এর কিছুদিন পরই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চিরবিদায় নেন ম্যারাডোনা। ম্যারাডোনার মৃত্যুর পরদিনই আইনজীবী মাতিয়াস পূর্ণ তদন্তের দাবি করেন। যার জন্য ২০ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

রয়টার্সের তথ্য অনুযায়ী গেল ৩০ এপ্রিল তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে তদন্ত কমিটি। যেখানে তদন্ত কমিটি জানিয়েছে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসকরা অবহেলা করেছেন। মৃত্যুর দিন দুপুর থেকে পর্যাপ্ত চিকিৎসা পাননি ম্যারাডোনা। যার কারণে হৃদরোগের আকষ্মিক আক্রমণের সাথে লড়তে পারেননি তিনি। এদিকে আর্জেন্টিনার গণমাধ্যমের তথ্যমতে এই তদন্ত প্রতিবেদনের উপর ভিত্তি করে ম্যারাডোনাকে হত্যা করার অভিযোগ আনা হতে পারে।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা