লঙ্কান প্রিমিয়ার লিগে হার দিয়ে শুরু আল আমিনদের

স্পোর্টস ডেস্কঃ লঙ্কান প্রিমিয়ার লিগে (এলপিএল) হার দিয়ে আসর শুরু করেছে ক্যান্ডি ওয়ারিয়র্স। ডাম্বুলা জায়ান্টসের বিপক্ষে ২০ রানে হেরেছে ক্যান্ডি। ম্যাচ শেষে তাই পরাজিত দলের সদস্য বাংলাদেশের পেসার আল আমিন হোসেন। বল হাতে এদিন গড়পড়তা মানের ছিলেন তিনি।

কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ডাম্বুলার দেওয়া ১৯১ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো করলেও, ধারা বজায় রাখতে পারেনি ক্যান্ডি। ২ ওভারের মাথায় ২৩ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙে কেনার লুইসের বিদায়ে। এরপর দ্রুত ২৮ রানের মধ্যে আরও দুটি উইকেট হারালে বিপদে পড়ে ক্যান্ডি।

সেখান থেকে অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো পেরেরা ও কামিন্দু মেন্ডিসের ৪২ রানের একটি জুটি ক্যান্ডিকে ভরসা দেয়। তবে সেই জুটি ভেঙে যাওয়ার পর, ফের বিপদে পড়ে ক্যান্ডি। সেখান থেকে রোভম্যান পাওয়েল লড়াই চালান। শেষ দিকে ইশান ও সাচিন্দুও হাত খুলে খেলেন। তবে সেটি পর্যাপ্ত ছিল না। যার কারণে ৮ উইকেটে ১৭০ রানে থামে ক্যান্ডির ইনিংস। ২১ বলে ১ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৪২ রানের ইনিংস খেলেন পাওয়েল। সাচিন্দু ২৭ ও অধিনায়ক পেরেরা ২৪ রান করেন।

ডাম্বুলার হয়ে ২১ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন রমেশ মেন্ডিস। ৩১ রান খরচায় ৩ উইকেট শিকার করেন নুয়ান প্রদীপ।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ১৯০ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় ডাম্বুলা। তবে শুরুর দিকে যে তাণ্ডবময় ব্যাটিং উপহার দিয়েছিল দলটি, এতে করে সেই সংগ্রহ বাড়তে পারতো আরও অনেকটা। প্রথম সাত ওভারেই বিনা উইকেটে স্কোরবোর্ডে ৯০ রান সংগ্রহ করে ডাম্বুলা।

দুই ওপেনার নিরোশান ডিকেওয়ালা ও ফিল সল্ট মারমুখি শুরু করেছিলেন। তাদের উদ্বোধনী জুটি ভাঙে ৭.৪ ওভারে দলীয় ৯৭ রানে। ২৩ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ৩৭ রান করে বিদায় নেই এই ডিকেওয়ালা। এরপর দ্রুতই বিদায় নেন সল্ট। তিনি যাবার আগে খেলে যান ২৭ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ৫ ছক্কায় ৬৪ রানের বিধ্বংসী ইনিংস। ২৩৭.০৩ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করেন তিনি।

এরপরই ডাম্বুলার রানের চাকার গতি কমে যায়। শেষ পর্যন্ত অধিনায়ক দাসুন শানাকার ২৪ ও রমেশ মেন্ডিসের ২২ রানের ইনিংসে ভর করে ১৯০ রানে থামে দলটির ইনিংস।

ক্যান্ডির হয়ে ৩৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে দলের সেরা বোলার লাহিরু কুমারা। বাংলাদেশের আল আমিন ৩৫ রান খরচায় শিকার করেন ২ উইকেট। প্রথম ওভারেই ১৪ রান খরচ করেন আল আমিন। আর নিজের শেষ ওভারে খরচ করেন ১৬ রান। মাঝের দুই ওভারে ৫ রান খরচ করেন এই ডানহাতি পেসার।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা