লড়াই করেও স্কটল্যান্ডের সাথে জিততে পারলো না পাপুয়া নিউ গিনি

স্পোর্টস ডেস্কঃ ৩৫ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছিল পাপুয়া নিউ গিনির ব্যাটিং লাইনআপ। সেখান থেকে দলকে লড়াই করে তুলে এনে জয়ের স্বপ্ন দেখান নরম্যান ভানুয়া। সঙ্গ দেন সেসে বাউ, কিপলিন ডোরিগা, চাঁদ সোপাররা। তবে শেষ পর্যন্ত জিততে পারেনি পিএনজি।

স্কটিশদের বিপক্ষে ১৯.৩ ওভারে ১৪৮ রানে গুঁটিয়ে গিয়ে দেখতে হয় ১৭ রানের। স্কটল্যান্ডের হয়ে জস ডেভেই নেন ৪ উইকেট। টানা দুই জয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বের আরও কাছে চলে গেল স্কটল্যান্ড।

১৬৫ রানের বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে মুড়ি-মুড়কির মতো উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে পিএনজি। মাত্র ৩৫ রানেই নেই দলের পাঁচ গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটার। এর মধ্যে আগের ম্যাচে ফিফটি হাঁকানো অধিনায়ক আসাদ ভালা একাই করেন ১৮ রান। বিপর্যয়ে পড়া দলকে ৩২ রানের জুটি গড়ে কিছুটা বিপদমুক্ত করেন ভানুয়া ও সেসে। ২৪ বলে ২৩ রান করে সেসে ফিরলে ভাঙে সেই জুটি।

এরপর কিপলিনের সাথে ৫৩ রানের জুটি গড়েন দলের জয়ের স্বপ্ন তৈরি করেন ভানুয়া। ১১ বলে ১ ছয় ও ১ বাউন্ডারিতে ১৮ রান করে ফেরেন কিপলিন। দ্রুতই ভানুয়া ফিরলেও সেই জয়ের স্বপ্ন ফিকে হয়ে যায় পিএনজির। তবে প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ৩৭ বলে ২ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ৪৭ রানের ইনিংস খেলে যান তিনি।

শেষ দিকে সোপার ১৬ রানের ছোট ক্যামিও কেবল দলের পরাজয়ের ব্যবধানই কমায়। শেষ পর্যন্ত ১৪৮ রানেই গুঁটিয়ে যায় পিএনজির ইনিংস। আর এতে করে বিশ্বকাপ থেকে কার্যত ছিটকে গেছে দলটি।

স্কটল্যান্ডের হয়ে ৩.৩ ওভার বল করে ১৮ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন ডেভেই। ব্র্যাড, ইভান্স, গ্রিভস ও মার্ক ওয়াট একটি করে উইকেট শিকার করেছেন।

এর আগে ওমানের আল আমেরাত স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৬ রানে দুই উইকেট হারিয়ে কিছুটা বিপাকে স্কটল্যান্ড। এরপর টপ অর্ডার ব্যাটার ম্যাথিউ ক্রস এবং রিচি বেরিংটন ৯২ রানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের পথ দেখান। ৩৬ বলে ২ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ক্রস ৪৫ রান করে ফিরলে ভাঙে সেই জুটি।

তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে দলের রান দেড়শ পার করেন বেরিংটন। ১৯তম ওভারের চতুর্থ বলে আউট হওয়ার আগে তিনি খেলে যান ৪৯ বলে ৬ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায় ৭০ রানের ঝড়ো ইনিংস। শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে ১৬৫ রানে থামে স্কটল্যান্ডের ইনিংস। এর মধ্যে প্রথম ১৮ ওভারে ৩ উইকেট হারালেও, পরের ২ ওভারে ৬ উইকেট হারায় দলটি। তবে পিএনজিকে ঠিকই ছুঁড়ে দিয়েছে ১৬৬ রানের বড় লক্ষ্য।

পিএনজির হয়ে বল হাতে ৪ ওভারে ৩৬ রানে ৪টি উইকেট শিকার করেন মোরেয়া। নিজের এবং দলের করা শেষ ওভারে ৪ উইকেট তুলে নেন তিনি। যেখানে একটি ছিল রান আউট। এর বাইরে ২৪ রানে ৩টি উইকেট নেন চাঁদ সোপার।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা