সাইক্লিংয়ের নেশায় ১৭ ঘন্টায় সিলেটের ৩৫১ কিলোমিটার ঘুরলেন যে চিকিৎসক

নিজস্ব প্রতিবেদক:: পেশায় তিনি একজন চিকিৎসক। মানুষের সেবাযত্ম করেন। সুস্থ থাকার উপায় বাতলে দেন। তিনিও সুস্থ থাকতে আর মানুষকে সচেতন করতে চান। আর তাঁর জন্যই সাইক্লিংয়ের নেশা তাঁকে পেয়ে বসেছে। মেডিকেলের শিক্ষার্থী থাকা অবস্থায় সেই যে ২০১৪ সাল থেকে শুরু সাইক্লিং আর থেমে নেই। তিনি ডাঃ হেদায়াতুল ইসলাম সাকিব।

সিলেট মা ও শিশু হাসপাতালের এনআইসিইউ’র মেডিকেল অফিসার সাকিব।  সিলেট শহরের মধুশহীদ এলাকার বাসিন্দা এই চিকিৎসক সম্প্রতি সাইকেলে চড়ে সিলেট বিভাগের ৩৫১ কিলোমিটার ঘুরে বেড়ান। ৩৫১.৩২ কিলোমিটার ঘুরে বেড়াতে তিনি সময় নেন ১৭ ঘন্টা ৭ মিনিট ১১ সেগেন্ড।

সিলেট থেকে বিকেলে রওয়ানা দিয়ে রাতে পৌছান মৌলভীবাজার। সেখান থেকে রাত ১টায় আবারো সাইক্লিং শুরু করে ভোরে পৌঁছান সিলেটের জৈন্তায়। সেখান থেকে আবারো শেরপুর, মৌলভীবাজার, ফেঞ্চুগঞ্জ হয়ে আবারো সিলেটে এসে থামেন ১৭ ঘন্টায়।

সিলেট সাইক্লিং কমিউনিটির এই সদস্য সিলেট নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্র্যান্ড দলের ড্রিম এর গিটারিস্ট ও ড্রামার।

সাকিব এর আগে ক্রসকান্টি রাইড করেছেন। ২০১৫ সালে সিলেট সাইক্লিং কমিউনিটির খাঁন মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন বাবর ও ফাহিম আহমদের সঙ্গী হয়ে কুয়াটা থেকে তামাবিল জিরো পয়েন্টে এসে থামেন তাঁরা। সাকিব টানা ১৭ ঘন্টা সাইকেল চালিয়েছেন। দীর্ঘ এই পথ পাড়ি দিয়েছেন সিলেটের প্রথম সাইক্লিস্ট হয়ে।  এমন ‘কঠিন’ কাজে সহযোগিতা পাওয়ায় তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন সিলেট সাইক্লিং কমিউনিটির সংগঠক আরিফ আখতারুজ্জামান ও খাঁন মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দীন বাবর, মৌলভীবাজারের রাজিব দে ও ইমন খাঁনদের।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/০০