সিলেটে নিরাপত্তায় কোন ছাড় দেবে না পুলিশ, বন্ধ থাকবে বেশ কয়েকটি সড়ক

নিজস্ব প্রতিবেদক:: দু’টি পাতা একটি কুঁড়ির দেশ সিলেট। সিলেটের সবুজ চা বাগানের বুক চিরে গড়ে উঠা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথমবারের মতো আয়োজন হচ্ছে দেশী-বিদেশী ক্রিকেট তাঁরাদের ব্যাট-বলের লড়াই।

আগামি ৪ নভেম্বর সিলেট থেকে যাত্রা শুরু করবে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগ বিপিএলের পঞ্চম আসর। সিলেটের ক্রিকেট ইতিহাসে আগে কখনো এমন ক্রিকেট উৎসব হয়নি। আয়োজন হয়নি বড় ইভেন্টের। ২০১৪ টি-২০ বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ আয়োজন হলেও দর্শকরা ছিলেন স্টেডিয়াম বিমুখ।

কিন্তুু বিপিএল পাল্টে দিয়েছে সেই চিত্র। তামিম, মুশফিক, সাকিব আর মাশরাফিদের খেলা ঘরের মাঠে বসে দেখতে উন্মুখ সিলেটের দর্শকরা। তার খন্ডচিত্র দেখা গেছে ৩১ অক্টোবর থেকে সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে শুরু হওয়া বিপিএলের টিকিট বিক্রি কার্যক্রমে।

এক সাথে এত বিপুল সংখ্যক ক্রিকেটার, অফিসিয়াল, দর্শকসহ সিলেটবাসীর নিরাপত্তায় তাই কড়া নজর পুলিশ কর্মকর্তাদের। বিপিএল উৎসবকে সুষ্ঠ ভাবে শেষ করতে তাদের ব্যস্ততা বেড়েছে কয়েকগুণ।

বিপিএল চলাকালে নিরাপত্তার প্রশ্নে ছাড় দিবে না পুলিশ। নিজেদের সর্বোচ্চটা প্রয়োগ করে নিরাপদেই সিলেটের ক্রিকেট উৎসব শেষ করতে চান মেট্রোপলিটন পুলিশের কর্মকর্তারা। নগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আব্দুল ওহাব এসএনপিস্পোর্টসের সঙ্গে আলাপকালে জানিয়েছেন, পুলিশ নিরাপত্তার প্রশ্নে অনড় থাকবে। দলগুলোর যাতায়াতের সময় সংশ্লিষ্ট সড়কগুলোত নিয়ন্ত্রণ করা হবে যানবাহন চলাচল। এসময় নগরবাসীকে বিকল্প রাস্তা ব্যবহারের জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

মেট্রোপলিটন পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, টিম হোটেল থেকে শুরু করে, অনুশীলন ভেন্যু, ম্যাচ ভেন্যু সব জায়গাতেই পুলিশ চার স্তরের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলবে। সিটি এসবি, এসবি, ডিবি আর পুলিশের সমন্বয়ে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।

উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) মোহাম্মদ আব্দুল ওহাব আরো বলেন, টিম হোটেলে বহিরাগতরা যাতায়াত করতে পারবেন না। পুলিশের অনুমতি ছাড়া দলের খেলোয়াড়, কর্মকর্তা বা অফিসিয়াল ছাড়া অন্য কেউ হোটেলে থাকতে পারবেন না।

তিনি বলেন, আমরা সবাই জানি এই প্রথমবার সিলেটে এমন মেগা ইভেন্ট আয়োজন হচ্ছে। খেলা দেখার জন্য সবাই চেষ্টা করবেন। কিন্তুু সবাই হয়তো টিকিট পাবেন না। যারা টিকিট পাবেন না, তারা অযথা ম্যাচের দিন স্টেডিয়াম এলাকায় ভীড় করবেন না। টিকিট ‘বঞ্চিত’ দর্শকদেরকে ভবিষ্যতের জন্য ধৈর্য্য ধারণের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, খেলা এক দিনেই শেষ নয়। ভবিষ্যতেও খেলা হবে। সবাই দেখতে পারবেন।

দর্শকরা স্টেডিয়ামে প্রবেশের সময় সন্দেহ জনক কোন বস্তুু নিয়ে পারবেন না জানিয়ে তিনি আরো বলেন, শুধু মাত্র মোবাইল ফােন এবং মানিব্যাগ নিয়ে যেতে হবে। এই বাইরে কোন কিছু নেওয়া যাবে না। টিকিটে লেখা নির্ধারিত প্রবেশ গেইটের রাস্তা দিয়ে দর্শকদের যাওয়ার জন্য তিনি আহ্বান করেন।

(সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আব্দুল ওহাবের সাক্ষাৎকারের ভিডিও প্রতিবেদনের উপরে সংযুক্ত আছে)

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/০০