সিলেট স্টেডিয়ামে বিশ্বনাথ-গোলাপগঞ্জের নান্দনিক ফুটবল দেখল হাজারো দর্শক

আশিক উদ্দিন: জেলা প্রশাসক আন্তঃ উপজেলা কাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ ৯ জানুয়ারী সোমবার সন্ধ্যা ৭ ঘটিকায় সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। ফাইনালের লড়াইয়ে মুখোমুখি হয় গোলাপগঞ্জ উপজেলা ফুটবল দল ও বিশ্বনাথ উপজেলা ফুটবল দল।

সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হওয়া ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণ পাল্টা আক্রমণের খেলায় মেতে উঠে দু’দল। চোখ ধাঁধানো পাসিং ফুটবল, এটাকিং পাস কখনো বা কাউন্টার এটাক। সাথে দুর্দান্ত ট্যাকল, ছিল লং পাস আর শর্ট পাসের ফুটবল নৈপুণ্য প্রদর্শনী।

সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে  গোলাপগঞ্জ-বিশ্বনাথ ফাইনাল লড়াই দেখতে আসা হাজার আটেক দর্শকের করতালি আর ভুভুজেলা বাশির আওয়াজে মুখরিত ছিল গোটা স্টেডিয়াম পাড়া।

খেলা শুরুর প্রথমার্ধেই ওয়ান-টু-ওয়ান পাসে বিশ্বনাথের জালে বল পাঠায় গোলাপগঞ্জ। ম্যাচের ২১ মিনিটে করা ১-০ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় গোলাপগঞ্জ। ডি বক্সের বাহির থেকে পাসিং ফুটবল খেলে বল জালে পাঠায় গোলাপগঞ্জ। আর তাতেই জেলা স্টেডিয়ামের হাজার আটেক দর্শক বাদ ভাঙা উল্লাসে মেতে উঠেন।

বিরতী থেকে ফিরে পিছিয়ে থেকে শর্ট পাসে আর লং পাসে বার বার দর্শকদের হাততালি কুড়াচ্ছিল বিশ্বনাথ। কিন্তু জয়ের নেশায় বুদ হয়ে থাকা বিশ্বনাথ এতেই সন্তোষ্ট ছিল না। তাই ম্যাচের অন্তিম মূর্হতে শিরোপার গন্ধ শুকতে থাকা গোলাপগঞ্জের জন্য বিষই ছুড়েছেন বিশ্বনাথের বিদেশী খেলোয়াড় লাকি।

৮৬ মিনিটে গোল করে মাতিয়ে তুলেন পুরো সমর্থক গোষ্ঠিকে। গোলের পর উজ্জাপন দেখেই বুঝা যাচ্ছিল একটা গোলের জন্য কতটা মরিয়া ছিল বিশ্বনাথ। এই গোলেই  মূলত স্বপ্নভঙ্গ হয় গোলাপগঞ্জের। ট্রাইবেকারে ৪-৩ গোলে তারা পরাজিত হয়।

জেলা প্রশাসক আন্তঃ উপজেলা কাপ ফুটবল যে দলই পরাজিত হয়েছে না কেন, দিন শেষ জয় হয়েছে ফুটবলের। গ্যালারি ভরা দর্শক, মাঠের নান্দনিক ফুটবল, সফল আয়োজন, সব কিছুই ছিল ফ্রেমে বন্দি করে রাখার মতো। সিলেটের দর্শকরা অনেক দিন মনে রাখবে এমন আয়োজন আর শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ কে।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/১০৪