সুর নরম করে মুশফিককে ফেরাতে উদ্যোগী বিসিবি!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের চূড়ান্ত সাফল্যের ধারায় যখন উড়ছে বিসিবি ও পুরো জাতি, ঘুরে ফিরে তখনই আবার আসছে জাতীয় দলের কথা। পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ও প্রথম টেস্টে ধরাশায়ী হয়ে নতুন করে চিন্তা-ভাবনা করছে দেশের সর্বোচ্চ ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

আপাতত ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আসন্ন টেস্ট ম্যাচ ও পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট নিয়েই পরিকল্পনা সাজাচ্ছে ক্রিকেট বোর্ড। আর এর জন্য নিজেদের সুর নরম করছেন তারা। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচে মুশফিকুর রহিমকে ফেরাতে উদ্যোগী হচ্ছে বিসিবি। একই সাথে চেষ্টা চলছে পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টেও মুশফিককে দলে নেওয়ার।

পাকিস্তান সফরে কাউকে যেতে জোর করবে না বলেছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এরপর মুশফিক ব্যক্তিগত নিরাপত্তা নিয়ে পরিবারের উদ্বেগের কথা বলে সরে দাঁড়ান পাকিস্তান সফর থেকে। টি-টোয়েন্টি সিরিজ একসাথে সেরে যাওয়ায় তেমন কোনো আপত্তি ছিল বোর্ডেরও।

কিন্তু সমস্যা দাঁড়ায় টেস্ট সিরিজে। টি-টোয়েন্টি’র পর টেস্ট সিরিজ খেলতে আরও দুই দফা পাকিস্তানে যাওয়া পরে বাংলাদেশের। আর এই দুই দফার মাঝেই পরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ। পাকিস্তানের বিপক্ষে দুই দফায় সফর নিয়ে মুশফিক নিজের সিদ্ধান্তে অটল থাকলে, ক্ষেপে যান বোর্ড প্রধান।

মাঝে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টের জন্য দলে কোনো পরিবর্তন চাচ্ছিলেন না নির্বাচক ও কোচরা। মুশফিককে দলে নিলে, সেই পরিবর্তন আনতে হবে। এমন দোলাচলের মধ্যে বোর্ড কঠোর হয় মুশফিকের উপর। সরাসরি কিছু না বললেও, ইঙ্গিত দেয় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে না রাখার। কিন্তু সেই সুর নরম করেছে বিসিবি।

জানা গেছে, মুশফিকের সাথে বসতে যাচ্ছে বিসিবি। সেখানে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দলে থাকা নিয়ে এবং পাকিস্তান সফরে দ্বিতীয় টেস্ট নিয়ে কথা হবে। থাকবে পাকিস্তানে একমাত্র ওয়ানডে ইস্যুও। ইতিবাচক আলোচনার আসায়ই করছে বোর্ড।

এদিকে আগে থেকেই তিন টেস্টেড় দল ঘোষণার দেওয়া থাকলেও, সেই সিদ্ধান্ত পাল্টাচ্ছে নির্বাচকরা। আগামি রোববারের মধ্যেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টের জন্য ঘোষণা করা হতে পারে দল। এই দলে নিশ্চিতভাবেই থাকছেন না সৌম্য সরকার। বিয়ের জন্য বোর্ডের কাছে থেকে ছুটি নিয়েছেন তিনি। এছাড়া বাদ পড়তে পারেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/সা