হায়দ্রাবাদকে হেসেখেলে হারালো দিল্লি

স্পোর্টস ডেস্কঃ স্থগিত আসর শুরুর পর প্রথম বারের মতো মাঠে নেমেছিল দিল্লি ক্যাপিটালস ও সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা দিল্লি ও একেবারে তলানিতে থাকা হায়দ্রাবাদের লড়াইয়ের আগে অবশ্য একটি দুঃসংবাদ এসেছিল। করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন টি নটরাজ। যার জন্য আরও ৬ ক্রিকেটারকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছিল।

তবে ম্যাচ আয়োজনে কোনো সমস্যা হয়নি। নির্ধারিত সময়েই মাঠে গড়ায় খেলা। যেখানে দিল্লির কাছে পাত্তায়ই পায়নি হায়দ্রাবাদ। হেসে-খেলেই ৮ উইকেটের বড় জয় পেয়েছে ঋষভ পন্তের দল। দুবাইয়ে ব্যাটে-বলে পারফর্মেন্স করেছেন দিল্লির ক্রিকেটাররা।

দুবাইয়ে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ১৩৪ রান সংগ্রহ করতে পারে হায়দ্রাবাদ। শুরু থেকেই নিয়মিত উইকেট হারানো ও ধীর গতির রানে হোঁচট খেতে থাকে। দলীয় ৯০ রানের মধ্যেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে দলটিকে একশ পার করিয়ে লড়াই করার পুঁজি এনে দেন আব্দুল সামাদ ও রশিদ খান।  ২১ বলে ২ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় সর্বোচ্চ ২৮ রান করেন সামাদ। ১৯ বলে ২ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ২২ রান করেন রশিদ।

দিল্লির হয়ে ৩৭ রানে ৩টি উইকেট নেন কাগিসো রাবাদা। এছাড়া নরকিয়া ১২ রানে ২টি ও অক্ষর প্যাটেল ২১ রানে ২টি উইকেট শিকার করেন।

১৩৫ রানের লক্ষ্য ১৩ বল আর ৮ উইকেট হাতে রেখেই টপকে যায় দিল্লি। উদ্বোধনী জুটিতে ২০ রান আসার পর ব্যক্তিগত ১১ রানে ফিরে যান পৃথ্বী শ। তবে আরেক ওপেনার শিখর ধাওয়ান ও টপ অর্ডারে নামা শ্রেয়াস আইয়ার ৫২ রানের জুটি গড়ে দলের জয়ের পথ সুগম করেন।

৩৭ বলে ৬ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ৪২ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ধাওয়ান। তবে ৬৭ রানের অবিচ্চিন্ন জুটি গড়ে দলের জয় নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়েন আইয়ার ও ঋষভ পন্ত। আইয়ার ৪১ বলে ২ চার ও ২ ছক্কায় ৪৭ এবং পন্ত ২১ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় ৩৫ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন।

হায়দ্রাবাদের হয়ে খলিল আহমেদ ও রশিদ খান ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

এই জয়ের পর পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্তান আরও পোক্ত করলো দিল্লি। ৯ ম্যাচে ৭ জয় ও ২ হারে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে আছে এখন দিল্লি। আর ৮ ম্যাচে মাত্র ১ জয় আর ৭ হারে মাত্র ২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের একেবারে তলানিতে অবস্থান করছে হায়দ্রাবাদ।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/সা