১৫ হোটেলে ঢাকা, চট্টগ্রাম-সিলেটে জৈব-সুরক্ষা বলয়ে বিপিএল

স্পোর্টস ডেস্ক:: বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেট এবার জৈব-সুরক্ষা বলয়ে অনুষ্টিত হবে। দেশের তিন ভেন্যু ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটে নিশ্চিত করা হবে জৈব-সুরক্ষা বলয়। তিন শহরের ১৫টি হোটেল চূড়ান্ত করেছে বিপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিদের জন্য।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ‘কঠোর’ ভাবে মেনে চলবে জৈব-সুরক্ষা বলয়। মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম ও সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে বিপিএলের আসর। আগামি ২০ জানুয়ারি শুরু হয়ে ২০ ফেব্রুয়ারি বিপিএল শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

বিসিবি এবার বিপিএলে ৬টি ফ্র্যাঞ্চাইজি বিক্রি করবে। ফ্র্যাঞ্চাইজি নিতে আগ্রহী প্রতিষ্ঠাকে আবেদন করতে হবে বিসিবি বরাবরে। পুরনো এবং নতুন সবাইকে দরপত্রে অংশ নিয়ে কিনতে হবে ফ্র্যাঞ্চাইজি। তবে আগের আসরের মতো এবারো ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক পরিশোধ করতে হবে বিসিবির অধীনে।

খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক পরিশোধের জঠীলতা এড়াতে বিসিবির তত্ত্বাবধানেই পারিশ্রমিক পরিশোধ করতে হবে খেলোয়াড়দের। দেশি-বিদেশী ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিকও ক্রিকেট বোর্ড নির্ধারণ করে দিয়েছে। এরই মধ্যে তিন ভেন্যুর প্রস্তুুতিও শুরু হয়েছে। প্রস্তুুত করা হচ্ছে নির্ধারিত ১৫টি হোটেলও।

দলগুলো অবস্থান করা হোটেলে প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত করা হবে। ম্যাচ ভেন্যু, অনুশীলন ভেন্যু ও টিম হোটেলে বায়ো-বাবল নিশ্চিত করা হবে। বিপিএলের আগামি আসরে একটি দল একাদশে তিন জন বিদেশীকে মাঠে নামাতে পারবে। দলে রাখতে পারবে ৮ জন বিদেশীকে। সর্বনিম্ন ১০ জন থেকে ১৪ জন দেশী ক্রিকেটারকে নিতে পারবে দলে।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০