পূরণ হলো না পাকিস্তানের চাওয়া

0
78

স্পোর্টস ডেস্ক:: হয়তো বদলা নেওয়ার প্রতিজ্ঞা ছিলো তাদের। তবে পাকিস্তানের চাওয়া শেষ পর্যন্ত আর পূরণ হলো না। সেমিফাইনাল জয়ের পর পাকিস্তানের ব্যাটিং কোচ ম্যাথু হেইডেন ফাইনালে খুব করে চাইছিলেন প্রতিপক্ষ হোক ভারত। সাবেক পাকিস্তান কিংবদন্তী শোয়েব আখতারেও চেয়ে ছিলেন মেলবোর্নে ভারতই আসুক।

মেলবোর্নে ফাইনালে ভারতকে আমন্ত্রণ জানিয়ে টুইটও করেন শোয়েব। তবে তাদের সকলের চাওয়া আর পূরণ হলো না। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ থেকে বিদায় করে দিয়েছে ভারতকে। ১০ উইকেটের বড় জয়ে বিশ্বকাপের ফাইনাল নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড। রোববার মেলবোর্নে ফাইনালে পাকিস্তানকে তাই লড়তে হবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।

ফাইনালে ভারতকে আমন্ত্রণ জানিয়ে টুইটারে এক ভিডিও বার্তায় শোয়েব বলেন, ‘ভারতকে বলেছি, আমরা মেলবোর্ন পৌঁছে গেছি। আমরা আপনাদের অপেক্ষায় আছি। আপনারাও চলে আসুন। কাল ইংল্যান্ডকে হারিয়ে আপনারাও মেলবোর্নের টিকিট কাটুন। মেলবোর্নেই ১৯৯২ সালে আমরা ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ছিলাম। সেটা ৯২ সাল ছিল, এখন ২০২২, এটুকুই কেবল পার্থক্য। আমি চাই ভারত-পাকিস্তান ফাইনাল হোক। আর অন্তত একটি ম্যাচ হোক দুই দলের। গোটা পৃথিবী এর জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে।’

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে বিশ্ব ‘রেকর্ড’ গড়ে ভারতীয় বোলারদের বেদড়ক পিটুনি দিয়ে, পাড়ার বোলার বানিয়ে ইংল্যান্ডকে ফাইনালে নিয়ে গেলেন অ্যালেক্স হেলস ও জস বাটলার। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে রােহিত-শর্মাদের ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। টি-২০ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী জুটিতো বটেই, যে কোনো উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়ে দুই ওপেনার ইংল্যান্ডকে তুলে দিলেন ফাইনালে।

এ্যাডিলেডে আগে ব্যাট করা ভারত হার্দিক পান্ডিয়া ও বিরাট কোহলির জোড়া হাফ সেঞ্চুরিতে ১৬৮ রান তুলেছিলো। জবাবে খেলতে নামা ইংল্যান্ড দুই ওপেনার অ্যালেক্স হেলস ও জস বাটলারের ব্যাটেই ম্যাচ জিতে যায়। ইংল্যান্ডের দুই উদ্বোধনী ব্যাটার ১৬ ওভারেই শেষ করে দেন খেলা। ৮০ রানে বাটলার ও ৮৬ রানে হেলস অপরাজিত থাকেন। নয় চার ও তিন ছয়ে মাত্র ৪৯ বলে নিজের ইনিংসটি সাজান বাটলার। ৪৭ বলের ইনিংসে হেলস চারটি চার ও সাতটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন।

টস হেরে ব্যাট করতে নামা ভারত বিরাট কোহলি ও হার্দিক পান্ডিয়ার ‘বিস্ফোরক’ হাফ সেঞ্চুরিতে ৬ উইকেটে ১৬৮ রান তুলে। চার মেরে ইনিংস শুরু করা ভারতের ওপেনার লুকেশ রাহুলকে বেশিদুর যেতে দেননি ওকস। দলীয় ৯ রানেই প্রথম উইকেট হারায় রোহিত শর্মার দল। ৫ বলে ৫ রানে সাজঘরে যান রাহুল।

অধিনায়ক রোহিত শর্মা দ্বিতীয় উইকেটে বিরাট কোহলিকে নিয়ে গড়েন ৪৭ রানের জুটি। দলীয় ৫৬ রানে দ্বিতীয় উইকেটে রোহিতের বিদায়ে ভাঙে এই জুটি। চার চারে ২৮ বলে ২৭ রান করেন ভারতের অধিনায়ক। তার বিদায়ের পর উইকেটে আসা সূর্যকুমার নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। এক চার ও এক ছয়ে ১০ বলে ১৪ রানে দলীয় ৭৫ রানে তিনি ফিরেন প্যাভেলিয়নে।

তিন উইকেট হারানোর পর মাঠে নামা হার্দিক পান্ডিয়া হয়ে উঠেন বিধ্বংসী। ১৯০’র বেশি স্ট্রাইকে মাত্র ৩৩ বলে চার চার ও পাঁচ ছয়ে ৬৩ রান করে ইনিংসের শেষ বলে ফিরেন প্যাভেলিয়নে। আরেক হাফ সেঞ্চুরিয়ান বিরাট কোহলি ৪০ বলে টিক ৫০ করেই ফিরেন সাজঘরে। চার চার ও এক ছয়ে সাজান দায়িত্বশীল ইনিংসটি। ৬ রানে রানআউট হন ঋশষ পন্থ।

ইংল্যান্ডের হয়ে ক্রিস জর্দান ৩টি, রশিদ ও ওয়াকস ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/ডেস্ক/০০0

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here