জিম্বাবুয়ের সুদিন শুরু, তবে কি বাংলাদেশের দুর্দিন?

কাইয়ুম আল রনি:: টানা দু’টি টি-২০ বিশ্বকাপ খেলতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। এবার তারা বিশ্বকাপ খেলবে। বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজের পর ওয়ানডে সিরিজও জিতেছে এক ম্যাচ হাতে রেখেই। প্রথমবারের মতো কোনো টেস্ট খেলুড়ে দেশকে টি-২০ সিরিজে হারিয়েছে।

  • বাংলাদেশ টি-২০ সিরিজের ক্ষত কাটিয়ে উঠতে চাইছিলো ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে। কিন্তু এখানেও হোঁচট খেলো তামিমের দল। দুর্দান্ত জিম্বাবুয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ওয়ানডে সিরিজ জিতে নিয়েছে। রাজার দল টি-২০ সিরিজের চেয়ে একধাপ এগিয়ে ওয়ানডে সিরিজে। তাদের  বিপক্ষে ওয়ানডেতে টানা ১৯ জয়ের পর টানা দুই পরাজয় বাংলাদেশের।

হারারেতে রাজকীয় প্রত্যাবর্তনই বলা যায় জিম্বাবুয়ের। ক্রিকেট মানচিত্র থেকে হারিয়ে যেতে বসা জিম্বাবুয়ে যেনো ফিরছে সুদিনে। আগের সেই রূপে। দুর্দান্ত জিম্বাবুয়ে। রেগিস চাকাভা আর সিকান্দার রাজা যেনো আগের জিম্বাবুয়েকেই ফিরিয়ে আনছে। প্রতিপক্ষের সাথে লড়াই করা, চোখ রাঙানি, সিরিজ জয়।

তা্মিম ইকবালের নেতৃত্বে টানা সিরিজ জয়ে থাকা বাংলাদেশ ওয়ানডে ফরম্যাটে রীতিমতো উড়ছিলো। তাদেরকে রোববার রাতে ৫ উইকেটে হারিয়ে মাটিতে নামালো জিম্বাবুয়ে দল। অভিনন্দনই প্রাপ্য দলটির। যেভাবে বুক চিতিয়ে লড়াই করেছে, চাপের মধ্যেও ন্যুয়ে পড়েনি, ঘুরে দাঁড়িয়েছে, হারারেতে ম্যাচের পুরোটা সময় দৌড়ের উপরই রেখেছে বাঘেদের।

আইসিসির ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে জিম্বাবুয়ে ১৫ নম্বরে, নেদারল্যান্ড-আমিরাতেরও পরে। বাংলাদেশ সেখানে ৭ নম্বরে। আগামি ওয়ানডে বিশ্বকাপ সরাসরি নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। কিন্তুু এই বাংলাদেশকেই যেনো বড্ড অচেনা মনে হচ্ছে। বিশ্ব ক্রিকেটে এমনিতেই দুর্বল হয়ে গেছে জিম্বাবুয়ে, তার ওপর চোট আর নানা সমস্যায় নামাতে পারেনি পূর্ণ শক্তির দল। দ্বিতীয় সারির জিম্বাবুয়েই কিনা বাংলাদেশকে হারিয়ে দিলো সিরিজ। এ যেনো শুধু সিরিজ জয়ই নয়। সুদিনে ফিরে আসার গল্পের শুরু তাদের।

স্বাগতিকরা যদি বাইশ গজে সুদিনে ফিরে, তবে কি বাংলাদেশের দুর্দিন শুরু হলো। দুই সিরিজে চার ম্যাচ হারের পর অন্তত সেটাই মনে হচ্ছে। বোর্ডের অপেশাদারিত্ব, খেলোয়াড়দের অপেশাদারি আচরণ। দলের জন্য না খেলে, নিজের জন্য খেলা, পরের ম্যাচে জায়গা ধরে রাখার জন্য খেলা একটি দলের জন্য এ এক অশনি সঙ্কেত।

ক্রিকেটারদের দায় আছে, বোর্ডেও দায় আছে। টিম ম্যানেজম্যান্ট টিকমতো দলই পরিচালনা করতে পারছে না। দল নির্বাচন প্রক্রিয়াও থাকছে প্রশ্ন বিদ্ধ। ম্যাচের আগের রাতে স্কোয়াডে ক্রিকেটার নেওয়া, সিরিজ শুরুর আগে ছাঁটাই করা ক্রিকেটারের কাছেই ম্যাচের আগের দিন দ্বারস্থ হয় যে বোর্ড, তাদের জন্য এমন দুর্দিন আসাটা অযৌক্তিকও নয়।

এসএনপিস্পোর্টসটোয়েন্টিফোরডটকম/নিপ্র/০০